চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাঙালির গৌরবের মাস, গর্বের মাস

বাঙালির গৌরব আর গর্বের মাস মার্চ। এ মাসেই ঘোষিত হয় বাংলাদেশ নামের একটি নতুন দেশের স্বাধীনতা, মুক্তিকামী বাঙালির স্বাধীনতা। বঙ্গবন্ধুর ডাকে বাঙালি ঝাঁপিয়ে পড়ে দেশকে মুক্ত করার জন্য মরণপণ লড়াইয়ে।

৭০ এর নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পরও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছে তখনও ক্ষমতা হস্তান্তর করেনি পাকিস্তানের সামরিক জান্তা। কথা ছিলো ৭১ এর ৩ মার্চ জাতীয় পরিষদের অধিবেশন বসবে।

কিন্তু একাত্তরের পয়লা মার্চ বাঙালি জাতির স্বাধীনতা আন্দোলনের মোড় ঘোরানোর দিনে, এক আকস্মিক বেতার ভাষণে পাকিস্তানের সামরিক জান্তা ইয়াহিয়া খান ৩ মার্চের জাতীয় পরিষদের অধিবেশন স্থগিত করে দেন। বাঙালিকে শৃঙ্খলে রাখার চক্রান্ত প্রতিরোধের শুরু হয় এদিন। আর প্রতিবাদে গর্জে ওঠে পুরো জাতি।

বিজ্ঞাপন

হোটেল পূর্বাণীতে জরুরি বৈঠকে বসেন আওয়ামী লীগের গণপরিষদ সদস্যরা। সিদ্ধান্ত হয় ২ মার্চ ঢাকায় আর ৩ মার্চ সারাদেশে হরতাল। ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জনসভা। সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জানান, রেসকোর্স ময়দানেই দেয়া হবে পূর্ণাঙ্গ কর্মসূচি।

এ দিন ঢাকায় চলছিলো পাকিস্তান ক্রিকেট টিম বনাম বিশ্ব একাদশের ৪ দিনের বেসরকারী টেস্ট ম্যাচ। সেদিনের ঘোষণার পর, প্রতিবাদে ফেঁটে পড়ে পুুড়ো স্টেডিয়াম। বন্ধ হয়ে যায় খেলাটি।

এ মাসের সূর্যে মিশে আছে বাঙালির রক্তের রং, লাল সবুজ পতাকায় যা গৌরব চিহ্ন হয়ে আছে। বছর ঘুরে বাঙালির কাছে মার্চ আসে লাল-সবুজের গর্বের পতাকা উড়িয়ে।

বিজ্ঞাপন