চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ফুটবল ভালোবাসে এমন কাউকেই চেয়েছিলাম’

‘জিন্নাত আসিয়া অর্থী ক্রিকেটার হলেও ফুটবল খুব ভালোবাসে। এমন কাউকেই চেয়েছিলাম জীবনসঙ্গী হিসেবে। আমিও ক্রিকেট পছন্দ করি। দুজন দুই খেলার মানুষ হলেও একই ভুবনের বাসিন্দা, আমাদের পরিচয় খেলোয়াড়।’ বলছিলেন জাতীয় দলের ফুটবলার মাহবুবুর রহমান সুফিল।

আড়াই বছর প্রেমের পর সুফিল-জিন্নাত বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন সোমবার। তাতে ফুটবল-ক্রিকেটের যোগসূত্রও স্থাপন হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিয়ের পোশাকে সুফিলের হাতে ফুটবল আর জিন্নাতের হাতে ক্রিকেট ব্যাট। এমন একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে মঙ্গলবার রাতে। কীভাবে ছবিটি ছড়িয়ে পড়ল সেটি জানেন না নবদম্পতি।

ছবিটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশের আগেই সর্বমহলে ছড়িয়ে পড়ায় ফটোগ্রাফারের মনেও জমেছে অভিমান। সুফিল জানালেন, ‘আমরা কেউ ছবি পোস্ট করিনি। অথচ ফেসবুকে তা ছড়িয়ে পড়েছে। অবাকই হয়েছি। ছবিটি তোলা হয়েছে বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে। যেখান থেকেই জিন্নাতের ক্রিকেট জীবন শুরু।’

বিজ্ঞাপন

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের ছেলে সুফিল বয়সভিত্তিক দলের হয়ে নিয়মিত পারফরম্যান্স করার পর বাংলাদেশ জাতীয় দলে অভিষেক লাওসের বিপক্ষে ম্যাচে। অভিষেকেই গোল করে বাংলাদেশকে জয়ের সমান ড্র এনে দেন। প্রথম ম্যাচেই পেয়ে যান পরিচিতি।

জিন্নাতের বাড়ি বগুড়া শহরে। বিকেএসপির উইকেটরক্ষক-ব্যাটার সবশেষ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছেন মোহামেডানের হয়ে। ক্লাবটির কোচ ইমতিয়াজ হোসেন পিলু বললেন, ‘গতকালই জিন্নাতের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে। আশা করি ও খেলা চালিয়ে যাবে। যেহেতু তার স্বামীও খেলোয়াড়। তাতে খেলা চালিয়ে নেয়া কঠিন হবে না।’

দুজনের পরিচয়ের সূত্রপাত বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) থেকে। যা এক সময় গড়ায় প্রেমে। পরিবারের সম্মিতে অবশেষে পেল পরিণয়।

কদিন আগে জাতীয় দলের নারী ক্রিকেটার সানজিদা ইসলাম বিয়ে করেন রংপুরের বিভাগীয় দলের ক্রিকেটার মীম মোসাদ্দেককে। ক্রিকেটার দম্পতির পর এবার ফুটবল-ক্রিকেটের বন্ধনের নজিরও পাওয়া গেল দেশে।