চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ফণীর প্রভাবে উড়িষ্যায় ভূমিধস, নিহত ২

ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে উড়িষ্যার পুরীতে ভূমিধসে দু’জনের মুত্যৃ হয়েছে। ঘণ্টায় ১৮০-২০০ কিলোমিটার বেগে প্রবাহিত দমকা হাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সেখানকার মানুষের জীবন।

এছাড়া পুরীর বেশ বড় এলাকা পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন

ফণীর কারণে ভূবনেশ্বর বিমানবন্দরও বন্ধ রাখা হয়েছে গতকাল মধ্যরাত থেকে। ৮৩টি যাত্রীবাহী সহ ১৪০টি ট্রেনও বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়া একই কারণে ইতোমেধ্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দর।

উড়িষ্যা পার হয়ে ফণী পশ্চিমবঙ্গের দিকে প্রবাহিত হবে বলে জানিয়েছে কলকাতার আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বিজ্ঞাপন

এর আগে শুক্রবার সকাল ৯টা নাগাদ পূর্বাভাসের আগেই ঘণ্টায় ১৮০-২০০ কিলোমিটার গতিবেগে উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়ে ‘অতি শক্তিশালী প্রবল ঘূর্ণিঝড়’ ফণী। এর প্রভাবে উড়িষ্যা বিধ্বস্ত জনপদে পরিণত হয়েছে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে: উড়িষ্যার চেয়ে অর্ধেক গতিবেগ নিয়ে ঘূর্ণিঝড় ফণী বাংলাদেশে অতিক্রম করবে।

আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দীন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন: শুক্রবার মধ্যরাত নাগাদ ফণী বাংলাদেশে ৮০-১০০ কিলোমিটার বেগে প্রবেশ করবে। শুক্র ও শনিবার দু’দিন ধরে দেশজুড়ে থাকবে ফণীর প্রভাব।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, ঘূর্ণিঝড় এবং অমবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, কুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাহ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪-৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাাবিত হতে পারে। এসব অঞ্চলে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণসহ ঘণ্টায় ৮০-১০০ কি: মি: বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়া অফিস আরো জানায়: উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পযন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে: ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাত মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে বাংলাদেশ।

Bellow Post-Green View