চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পুঁজিবাজারে আসছে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড

পুঁজিবাজারে আসছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের  প্রতিষ্ঠান এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড। বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পেয়েছে এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের সভাপতিত্বে গত ০৫ আগস্ট, ২০২০ তারিখে অনুষ্ঠিত ৭৩৪তম কমিশন সভায় কোম্পানিটিকে ইলেকট্রনিক বিডিংয়ের মাধ্যমে প্রান্ত-সীমা মূল্য (কাট-অফ প্রাইস) নির্ধারণের জন্য বিডিংয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করবে। উত্তোলিত টাকায় এলপিজি ব্যবসা সম্প্রসারণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও আইপিও প্রক্রিয়ার খরচ নির্বাহে ব্যয় করবে। ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের সমন্বিত আর্থিক বিবরণী অনুসারে, পুনর্মূল্যায়ন সঞ্চিতিসহ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ৪৫ টাকা ১৫ পয়সা আর পুনর্মূল্যায়ন সঞ্চিতি ছাড়া এনএভিপিএস ৩০ টাকা ২০ পয়সা। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে আছে লংকাবাংলা ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ইলেক্ট্রো মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠান এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত। শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের  অগ্রদূত হিসেবে এনার্জিপ্যাক সুপরিচিত একটা নাম। এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড মূলত একটি কর্মী মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান; কেননা প্রতিষ্ঠানটির উল্লেখযোগ্য শেয়ারের মালিক মূলত এই প্রতিষ্ঠানটির কর্মীরা। সুনির্দিষ্ট নিয়মের মাধ্যমে কর্মীদের মধ্যে মুনাফার বিষয়টি বন্টন করা হয়ে থাকে। যাত্রার শুরু থেকেই এনার্জিপ্যাক কর্মীবান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসেবে সকলের মাঝে সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

২৫ বছরের যাত্রায় প্রতিষ্ঠানটি অর্জন করেছে নানা সম্মান ও স্বীকৃতি। যার মধ্যে রয়েছে: আইএসও ৯০০১-২০১৫ এবং সুপারব্র্যান্ডস অ্যাওয়ার্ড এবং জেএসি’র জন্য গ্লোবাল ডিস্ট্রিবিউটর অ্যাওয়ার্ড ও বেস্ট ব্র্যান্ড প্রোমোশন অ্যাওয়ার্ড।