চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘নয়া জলঢাকা’ আন্দোলনে হরিজন সম্প্রদায়ও এগিয়ে যাবে

এই দেশে হরিজনদের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াই এ প্রয়োজনে আমরা জীবন বাজি রাখব জানিয়ে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেছেন: আপনারা হতাশ হবেন না। আমাদের সম্মিলিত প্রয়াসে আমি বিশ্বাস রাখি যে, নয়া জলঢাকা আন্দোলনে হরিজন সম্প্রদায়ও সামনে এগিয়ে যাবে। জলঢাকার কেউ আপনাদের খোঁজ খবর না রাখলেও আমি এবং আমার ফাউন্ডেশন আপনাদের পাশে সবসময় আছি এবং থাকবো। আপনাদের যে কোন সমস্যায় আপনারা আমাদেরকে পাশে পাবেন।

সোমবার জলঢাকার হরিজন পল্লিতে মত বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

হরিজন সম্প্রদায়ের কথা শোনার পর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেন, বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেক নাগরিকের সমান অধিকার রয়েছে। আমি এবং আমার ফাউন্ডেশন আপনাদের পাশে রয়েছে এবং জলঢাকার হরিজন সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করবো ।

এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন হরিজন সম্প্রদায়ের প্রায় ৭০-৮০ পরিবারের সদস্য। ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজের সফর সঙ্গী হয়ে উপস্থিত ছিলেন তার ফাউন্ডেশনের মুল সমন্বয়ক এনামুল হকসহ শতাধিক কর্মী।

এসময় হরিজন সম্প্রদায়ের অন্যতম নেতা শ্রী বিজয় দাস বলেন, আমরা হরিজন হওয়াতে সমাজে এবং রাষ্ট্রে নানাভাবে অধিকার বঞ্চিত। জলঢাকার হরিজন সম্প্রদায় নানাভাবে বৈষম্যের শিকার।

শ্রী শ্যামল দাস বলেন, আমাদের থাকার সুবন্দোবস্ত হয় না। আমাদের বাড়িগুলো এবং বাড়ি যাওয়ার রাস্তা অল্প বৃষ্টিতেই ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। প্রশাসন আমাদেরকে উপেক্ষা করে চলে। কিন্তু আমরাও তো মানুষ। আমাদের কথা কি কেউ ভাববে না?

হরিজন সম্প্রদায়ের সদস্য শ্রীমতী মনি দাস বলেন, আমরা প্রশাসনের কাছে আমাদের জন্য রাষ্ট্রীয় বরাদ্দ দাবি করলে প্রশাসন আমাদের দূর দূর করে তাড়িয়ে দেয়।

তিনি আরও বলেন, আজ এত বছরে জলঢাকার কোন নেতা আমাদের খোঁজ খবর নিতে আসেনি। আজ প্রথমবার ব্যারিস্টার তুরিন আপা আমাদের খবর নিতে আসায় আমরা হরিজন সম্প্রদায়ের লোকজন অত্যন্ত খুশি এবং কৃতজ্ঞ।

বিজ্ঞাপন