চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নির্মাতা সাদে মুগ্ধতা, অভিনয়ে বাঁধন বিস্ময়কর সুন্দর

ভারতীয় এনডিটিভির রিভিউতে 'রেহানা মরিয়ম নূর'

‘সিনেমাটি শুধু বাংলাদেশ নিয়ে নয়। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ আসলে পুরো বিশ্বের কথাই বলে। পুরো বিশ্বের সুরই যেন ফুটে উঠেছে ছবিতে’

৭ জুলাই কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রিমিয়ার হয়ে গেল বাংলাদেশের প্রথম অফিশিয়াল সিলেকশন ‘রেহানা মরিয়ম নূর’-এর। কানে ছবি দেখে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির জন্য রিভিউ করেছেন শৈবাল চ্যাটার্জি।

আজমেরী হক বাঁধনের অভিনয়ের প্রশংসা যেমন তার লেখনীতে উঠে এসেছে, সেই সাথে এই সমালোচক মুগ্ধ হয়েছেন আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের পরিচালনায়।

শৈবাল চ্যাটার্জির রিভিউতে বলা হয়েছে, সাদের চিত্রনাট্যের গাঁথুনি, তুহিন তামিজুলের ক্যামেরার অস্থিরতা, মিউটেড কালার প্যালেট ও আজমেরী হক বাঁধনের অভিনয়ের গভীরতায় ছবির আবেগ ফুটে উঠেছে।

‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবিটি শীতল, দম বন্ধ করা অনুভূতি দেয়। ছবির দৃশ্যগুলোর জন্য নীলচে আভা নির্বাচনে শৈল্পিকতা ফুটে উঠছে, দৃশ্যগুলোকে আরও সঠিকভাবে ফুটিয়ে তুলেছে।

বিজ্ঞাপন

রিভিউতে আরও বলা হয়েছে, ক্যামেরা সবসময়ে ‘রেহানা’র খুব কাছেই থাকে, তবে তার চেহারা কমই দেখা যায়। কখনও রুম দেখানো হয়, কখনও তার এলোমেলো পা ফেলে হেঁটে যাওয়া অনুসরণ করা হয়। এমনকি মাঝে মাঝে যখন তার চেহারা দেখানো হয়, তখনও ‘রেহানা’কে স্থির দেখানো হয় না। স্থির থাকে করিডর ও রুম।

ক্যামেরার এই অস্থিতিশীলতা দিয়ে যে শুধু ‘রেহানা’র বিভ্রান্তি বোঝানো হয়েছে তা নয়। চলচ্চিত্রের নির্মাতা ক্যামেরার এই অস্থিরতার মাধ্যমে নিজের সাথে, কলেজ প্রশাসনের সাথে এবং সমাজের সাথে যুদ্ধের অনুভূতিটা দর্শককে উপলব্ধি করানোর চেষ্টা করেছেন।

ছবিতে ‘রেহানা’র অনেকগুলো রূপ ফুটে উঠেছে। এক ‘রেহানা’য় বাঁধন নিজেকে ফুটিয়ে তুলেছেন শিক্ষক, চিকিৎসক, অভিভাবক, কন্যা সন্তান, বোন এবং নিরলস প্রতিবাদকারী হিসেবে। বিস্ময়কর সুন্দর ভাবে চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলেছেন অভিনেত্রী। চরিত্রের ক্ষোভ, অসন্তুষ্টি, দমিয়ে রাখা আবেগ এবং দৃঢ়তা ফুটিয়ে তুলেছেন অভিনয়ের মাধ্যমে। এটি একটি হৃদয় নিংড়ানো, গভীর পারফর্মেন্স।

রেহানা মরিয়ম নূরের একটি দৃশ্যে বাঁধন

শৈবাল চ্যাটার্জি রিভিউতে প্রশ্ন করেছেন, বাংলাদেশ যতদূর এগিয়েছে, নারী শাসিত বাংলাদেশের নারীরা কি তত দূর এগুতে পেরেছেন? তারা কি পৃথিবীতে এবং নিজেদের কাজের জায়গায় অধিকার আদায় করতে পেরেছেন? সিনেমাটি শুধু বাংলাদেশ নিয়ে নয়। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ আসলে পুরো বিশ্বের কথাই বলে। পুরো বিশ্বের সুরই যেন ফুটে উঠেছে ছবিতে।

বিজ্ঞাপন