চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নাইটক্লাবে সেদিন কী ঘটেছিল জানালেন সুজান

মঙ্গলবার বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর ছড়িয়ে পড়ে করোনা বিধি না মানায় নাইট ক্লাব থেকে গ্রেফতার হয়েছেন হৃতিক রোশনের প্রাক্তন স্ত্রী সুজান খান,ভারতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার সুরেশ রায়না এবং গায়ক গুরু রনধাওয়া সহ ৩৪ জন। এই বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এক বিবৃতি দিয়েছেন সুজান। জানিয়েছেন সেদিন আসলে কী ঘটেছিল সেই প্রসঙ্গে।

সুজান বলেন, ‘রাত আড়াইটার দিকে হোটেল কর্তৃপক্ষ অতিথিদেরকে আরও তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। আমরা ৬টার দিকে বের হওয়ার অনুমতি পাই। মিডিয়ায় বলা হয়েছে গ্রেফতার করা হয়েছে, বিষয়টি ভুল।’

বিজ্ঞাপন

সুজান মুম্বাই পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মুম্বাইবাসীদের নিরাপদে রাখার জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাওয়ার জন্য।

গুরু রনধাওয়াও এক বিবৃতি দিয়েছেন এর আগে। তিনি বলেছেন, নাইট কারফিউ সম্পর্কে তিনি জানতেন না।

সিনিয়র পুলিশ ইন্সপেক্টর এস মানি মঙ্গলবার ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, ‘আড়াইটার দিকে অভিযান চালানো হয় ড্রাগনফ্লাই ক্লাবে। আমরা দেখতে পাই অতিথিরা করোনা বিধি মানছিলেন না। তারা মাস্ক পরেননি এবং সামাজিক দূরত্বও বজায় রাখেননি। আমরা ৩৪ জনকে গ্রেফতার করি, তাদের মাঝে ৭ জন স্টাফ মেম্বার ছিলেন। তাদের মাঝে নারী সেলিব্রেটিও ছিলেন। আমরা তাদের গ্রেফতার করিনি। নোটিশ দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।’

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনের ১৮৮, ২৬৯ এবং ৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়।

সোমবার করোনার জন্য রাতে কারফিউ জারি করেছিল মহারাষ্ট্র সরকার। ক্লাব বন্ধ করার নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেয়া হয়েছিল। নতুন বছর এবং বড়দিনকে মাথায় রেখে ২২ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত করোনা পরিস্থিতি সামাল দিলে এই নিয়ম জারি করা হয়েছিল। কিন্তু নিয়ম না মেনে অতিরিক্ত সময় খোলা ছিল ক্লাব। সেই জন্যই গ্রেফতার করা হয় তাদের।