চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

থানায় শুটিং, ভয়ে ছিলেন রিয়া!

করোনার কারণে দীর্ঘদিন ঘরে থাকার পর শুটিংয়ে ফিরেছেন সানজানা সরকার রিয়া। যিনি কাজল আরেফিন অমির জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ দিয়ে আলোচিত হয়েছেন। 

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে রিয়া জানান, তিনি গেল ২৪ আগস্ট শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন।  শুটিং হয়েছে ধানমন্ডি থানায়। প্রথম দিন থেকেই শুটিং নিয়ে ভয়ে ছিলেন। তবে ভয়টা থানায় শুটিং হয়েছে বলে নয়! রিয়া বললেন, প্রথমদিনে শুটিংয়ে বেশ ভয় পেয়েছি কারণ একটাই, করোনার সংক্রমণ!

বিজ্ঞাপন

রিয়া বলেন, শুটিং সেটে গিয়ে ভয় লাগছিল। কেউ যখন হাঁচি বা কাশি দিচ্ছিল বিশেষ করে তখন ভয় লাগছিল। অবশ্য সেফটি মেনেই শুটিং করেছি। শট দেয়ার পর স্যানিটাইজার ব্যবহার করেছি বা ক্যামেরার পিছনে গিয়ে মাস্ক পরে ছিলাম।

বিজ্ঞাপন

থানায় শুটিং হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, থানায় শুটিং হবে শুনে খুবই এক্সাইটেড ছিলাম। জেলার, হাজত, লকাপ, পুলিশ সম্পর্কে নতুন ধারণা পেয়েছি। পুলিশরাও খুব হেল্পফুল ছিল। এটা আমার জন্য এক অন্যরকম অভিজ্ঞতা। কারণ আগে এসব ফেইস করিনি।

ব্যাচেলর পয়েন্ট সিজন ১ ও ২ এর পর আবার নতুন সিজন (৩) এর শুটিং শুরু হয়েছে। তবে এ সিজনে কাজটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন না রিয়া। তিনি মনে করেন, ব্যাচেলর ইউনিট পরিবারের বাইরে আরেকটা পরিবার।

রিয়া বলেন, আমি খুব কম কাজ করি। তবে এই সিরিয়ালের শুটিংটা আরাম করেই করি। সবাই আমার ভীষণ আপন। কখন শুটিং শুরু হয় আর কখন শেষ হয় ঠিকমতো বোঝাই যায়না।

‘ব্যালেচর পয়েন্ট’-এর নতুন সিজন নিয়ে নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি বলেন, প্রত্যেকের চরিত্র আগেরটাই থাকবে। হয়তো নতুন কাস্টিং যোগ হতে পারে। কিন্তু কারও চরিত্রে পরিবর্তন আসবে না। তিনি বলেন, ধানমন্ডি থানায় রিয়া একদিন শুটিং করেছে। সম্ভবত এই প্রথম সে থানায় গিয়ে শুটিং করেছে।

৫৮ পর্ব থেকে মোশন রকের ব্যানারে ১০ সেপ্টেম্বর ধ্রুব টিভির ইউটিউবে সপ্তাহে (তিনদিন) বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার রাতে ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিজন ২ আবার প্রচারে আসবে। ১৫ টির মতো পর্ব প্রচারের পর ‘সিজন ২’ শেষ হবে। পরের সপ্তাহ থেকে শুরু হবে ব্যাচেলর পয়েন্ট ‘সিজন ৩’।