চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তিন দফা বাড়ার পর সামান্য কমলো ভোজ্যতেলের দাম

দুই মাসের মধ্যে তিন দফা বাড়ার পর লিটারপ্রতি ৩ টাকা কমেছে ভোজ্য তেলের দাম।

ফলে এখন থেকে বোতলজাত এক লিটার সয়াবিন তেলের খুচরা দাম ১৪১ টাকা এবং ৫ লিটারের বোতলের দাম হবে ৬৭০ টাকা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে পবিত্র রমজান ও আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এই দাম কমিয়েছে বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন।

সোমবার সংগঠনটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

এতে বলা হয়, ২০১৪ সাল থেকে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত ভোজ্যতেলের বাজার মোটামুটি স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু গত বছরের জুনের পর থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিকভাবে দাম বেড়ে যায়। যেহেতু ভোজ্যতেলের মোট চাহিদার ৯৫ ভাগেরও বেশি আমদানির মাধ্যমে পূরণ করা হয় সেহেতু সাম্প্রতিক সময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ার কারণে স্থানীয় বাজারেও এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে যেই পরিমাণে দাম বেড়েছে স্থানীয় বাজারে সেই পরিমাণে দাম বাড়েনি বলে দাবি করেছে ভোজ্যতেল ব্যবসায়ীদের এই সংগঠন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে নিয়মিতভাবে দেশীয় উৎপাদন, আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি, আমদানি পরিস্থিতি এবং স্থানীয় বাজার পরিস্থিতি সার্বক্ষণিকভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে অতিমাত্রায় দাম বাড়ার কারণে বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে গড়ে লিটারপ্রতি ৫ টাকা বাড়ানো হয়েছিল। বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় পবিত্র মাহে রমজান এবং করোনা মহামারির এই সময়ে ভোক্তা সাধারণের ক্রয়ক্ষমতা বিবেচনায় অ্যাসোসিয়েশন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে পবিত্র ঈদুল ফিতর পর্যন্ত প্রতি লিটারে তিন টাকা ছাড় দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তবে যখনই আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়বে বা কমবে তাৎক্ষণিকভাবে তা সমন্বয় করা হবে বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

এর আগে গত ১৯ এপ্রিল আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে ভোজ্যতেল উৎপাদন ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়ে চিঠি দেয়। চিঠিতে সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৫ টাকা বাড়িয়ে ১৪৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়। তবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ট্যারিফ কমিশন এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা বা সিদ্ধান্ত দেয়নি। ফলে ২৫ এপ্রিল থেকে দাম বাড়িয়ে দেন ব্যবসায়ীরা। দাম বাড়ানোর এক সপ্তাহ পর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানাল, ৫ টাকা নয়, দাম বাড়ানো যাবে ২ টাকা। এর পরিপ্রেক্ষিতেই ৩ টাকা কমানোর ঘোষণা দিলেন ব্যবসায়ীরা।

বিজ্ঞাপন