চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টেস্টেও আফগান ইতিহাস

আফগানিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাসে স্মরণীয় দিন। ব্যাট হাতে রহমত শাহ এবং বলে রশিদ খান। দুই জনের ম্যাজিক্যাল ইনিংসে আয়ারল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়ে টেস্টে প্রথমবার জয় তুলে নিয়েছে আফগানিস্তান। সেই সঙ্গে এটা অফগানিস্তানের প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ও।

সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেট দুনিয়ায় একের পর ইতিহাস নতুন করে লিখছে আফগানিস্তান। ওয়ানডে, টি-টুয়েন্টির রঙিন পোশাকে সাফল্যের পর এবার সাদা পোশাকেও ইতিহাস লিখল যুদ্ধ-বিধ্বস্ত আফগানরা।

বিজ্ঞাপন

দুই ইনিংসেই দুটি অর্ধশতরান (৯৮, ৭৬) হাঁকিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন রহমাত শাহ। অন্যদিকে স্পিন ভেল্কিতে আইরিশদের মাত করেছেন রশিদ। দ্বিতীয় ইনিংসে পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে আইরিশ ব্যাটিংয়ের ভিত নাড়িয়ে দেন আফগান এ লেগস্পিনার। টেস্টে এটা রশিদের প্রথম পাঁচ উইকেট শিকার। দুই ইনিংস মিলিয়ে সাত উইকেট পেয়েছেন আফগান তারকা।

২০১৭ সালে টেস্ট খেলিয়ে দেশের তকমা পাওয়ার পর নিজেদের দ্বিতীয় টেস্টে জয়ের মুখ দেখল আফগানিস্তান। এর আগে ২০১৮ সালে ভারতের মাটিতে প্রথম টেস্ট খেলেছিল রশিদরা। ভারতের বিরুদ্ধে সেই টেস্টে অবশ্য আফগানদের হারের মুখ দেখতে হয়েছিল ইনিংস ও ২৬২ রানে।

বিজ্ঞাপন

দেরাদুনে এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজে টস জিতে ব্যাটিং নেয় আয়ারল্যান্ড। প্রথমে ব্যাট করে স্কোরবোর্ডে ১৭২ রান তোলে আইরিশরা। আফগানিস্তানের হয়ে তিনটি করে উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ নবি, ইয়ামিন আহমেদজাই।

জবাবে রহমত শাহের ৯৮ রানে ভর করে প্রথম ইনিংসে ৩১৪ রান তোলে আফগানিস্তান। দুই ইনিংসে দুই অর্ধশতরান, ম্যাচের সেরা হন রহমত শাহ।

অধিনায়ক আসগর আফগান ৬৭ রান করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে এরপর রাশিদের ৫ উইকেটের সুবাদে আইরিশদের ২৮৮ রানে বেঁধে রাখে আফগানিস্তান।

জয়ের জন্য আফগানিস্তানের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৪৭ রান। রহমতের ৭৬ রানের দামী ইনিংসে ভর করে তিন উইকেট হারিয়েই প্রয়োজনীয় রান তুলে প্রথমবারের মতো টেস্ট জয়ের স্বাদ পায় আফগানিস্তান। ইহসানউল্লাহ অপরাজিত থাকেন ৬৫ রানে।

টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার আট মাসের ব্যবধানেই জয়ে স্বাদ পেল আফগানিস্তান। টেস্ট দুনিয়ায় এ এক অনন্য রেকর্ড। পাকিস্তান ও ইংল্যান্ডের পাশাপাশি আফগানিস্তানের প্রথম টেস্ট ম্যাচ জয় দ্বিতীয় দ্রুততম।

Bellow Post-Green View