চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জানা গেল আরিয়ার মৃত্যুর কারণ, প্রকাশ্যে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট

শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) কলকাতার যোধপুর পার্কের নিজ ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় ‘ডার্টি পিকচার’ খ্যাত অভিনেত্রী আরিয়া বন্দ্যোপাধ্যায়ের মরদেহ। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) বিকালে প্রকাশ্যে এসেছে অভিনেত্রীর ময়নাতদন্তের রিপোর্ট।

অভিনেত্রীর মৃত্যুর পর থেকেই তার মৃত্যু রহস্য নিয়ে জট ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছিল। তাই ময়নাতদন্তের রিপোর্টের দিকে চোখ রেখেছিলেন তদন্তকারীরা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানা গেছে, হার্ট, কিডনি বিকল হয়ে গিয়েছিল অভিনেত্রীর। লিভার সিরোসিসও ছিল। মূলত মেঝেতে পড়ে যাওয়ায় মাথা ফেটে যায় আরিয়ার, সেটি থেকেই ঠোঁট ও নাকে আঘাত পেয়ে রক্তক্ষরণ হয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু ঘটে। এছাড়াও ময়নাতদন্তের রিপোর্টে আরিয়ার শরীর থেকে প্রায় ২ লিটার মদের উপস্থিতি মিলেছে।

বিজ্ঞাপন

ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পাশাপাশি পুলিশি সূত্রে জানা গেছে, যোধপুর পার্কের ওই বাড়িতে একাই থাকতেন আরিয়া। এক তলা ও দোতলার সব জানালা-দরজা বন্ধ থাকলেও ছাদের দরজা খোলা থাকতো প্রায়ই। ঘটনার দিন সকালেও তিন তলার বারান্দায় দেখা গিয়েছিল আরিয়াকে, এমনটাই তথ্য দিয়েছেন প্রতিবেশীরা।

ঘটনার দিন শুক্রবার দুপুরে বেশ কয়েকবার ফ্ল্যাটের ডোরবেল বাজিয়ে কোনো সাড়া পাচ্ছিলেন না অভিনেত্রীর গৃহপরিচারিকা চন্দনা দাস। পরে প্রতিবেশীদের সাহায্যে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। তারা এসে বন্ধ দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। এসময় ঘরের ভেতর থেকে উদ্ধার হয় আরিয়ার রক্তাক্ত মরদেহ।

আরিয়া ছিলেন বিখ্যাত সেতারবাদক পণ্ডিত নিখিল বন্দ্যোপাধ্যায়ের কনিষ্ঠ কন্যা। ‘লাভ সেক্স অউর ধোকা’ দিয়ে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন তিনি। পরবর্তীতে মিলন লুথরিয়ার ‘দ্য ডার্টি পিকচার’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন।

বিজ্ঞাপন