চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় তহবিল কয়েকগুণ করার দাবি

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ১শ’ বিলিয়ন ডলারের তহবিল যথেষ্ট নয়। বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে এমন মন্তব্য করে চার বছরের মধ্যে তহবিল কয়েকগুণ করার দাবি তুলেছে ক্লাইমেট ভারনারেবল ফোরামের দেশগুলো। কার্বন নিঃসরণ কমাতে সেচ ব্যবস্থা সোলার করার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ।

জাতিসংঘ বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে নবায়নযোগ্য জ্বালানীর প্রযুক্তি বিনিময় নিয়ে আলোচনা চলছে নানা ফোরামে।বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে, ডিজেল নির্ভর সেচ ব্যবস্থাপনা থেকে পরিবেশবান্ধব সৌরশক্তি চালিত পাম্প প্রযুক্তি তুলে ধরে উন্নয়ন সংস্থা ইডকল। অন্য আয়োজনে বাংলাদেশে ক্লিন এনার্জি উৎপাদনের লক্ষ্য তুলে ধরে জ্বালানী মন্ত্রণালয়।

এসময় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন: এখন পর্যন্ত জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি নিরসনে বাংলাদেশ প্রণীত ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্র‍্যাটেজি এন্ড অ্যাকশন প্ল্যান বিশ্বকে পথ দেখাচ্ছে। ফলে জলবায়ু ঝুঁকিহ্রাসে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল।

সরকার নিজস্ব অর্থায়নে এই অ্যাকশন প্ল্যান বাস্তবায়নে কাজ করছে এবং জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট তহবিল থেকে ৪৪৩ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে ৭৮৯টি প্রকল্প হাতে নিয়েছে জানিয়ে ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনন্য দূরদর্শী নেতৃত্বে এসকল পদক্ষেপের কারণেই জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা করেও দেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলেছে।

বিজ্ঞাপন

সম্মেলনের প্রত্যাশা, প্রপ্তি ও বাস্তবতা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় রাষ্ট্রিয় নানা উদ্যোগ তুলে ধরে কিছু সুপারিশ তুলে ধরেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সংসদী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী।

 

প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু

 

হতাশা আছে পরিবেশ নিয়ে কাজ করা সংগঠনগুলোর। এ প্রসঙ্গে প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু বলেন: নানা বিষয়ে আলোচনার ফাঁকে ফাঁকে যেটা সব থেকে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে সেটা হচ্ছে নেচার বেজড সলিউশন। নেচারের জন্য ভালো এ ধরনের সমাধানগুলোই আমাদের বের করতে হবে। বাংলাদেশ কিন্তু নেচার বেজড সলিউশনের কাজ শুরু করে দিয়েছে। বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে ম্যানগ্রোভ প্রকল্প বহু ফোরামে প্রশংসিত হয়েছে। এখন আরও জোরেশোরে এটা চালিয়ে যেতে হবে। পাশাপাশি কৃষি কাজের জন্য সোলারের ব্যবহার বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। নেচার থেকেই আমাদের সমাধানটা নিতে হবে। কেননা, নেচারই সমাধান আমাদের পৃথিবীটাকে ভালো রাখতে।

এক সপ্তাহের জলবায়ু সম্মেলনে তেমন কোন সাফল্য না এলেও এখনই হতাশ হতে চায় না বাংলাদেশ। ধরিত্রীর বৃহৎ স্বার্থে বিশ্ব এক সুতোয় আসবে বিশ্ব নেতারা এমন আশা ক্লাইমেট ভারনারেবল ফোরামের।

বিজ্ঞাপন