চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গোলরক্ষককে দিয়ে পেনাল্টি নেয়ার কথা ভাবছেন গার্দিওলা

ভীষণ সংকটে পড়ে গেছেন পেপ গার্দিওলা। দল ভর্তি তারকা আর মেধাবী ফুটবলার থাকার পরও একটা জায়গায় ডাব্বা মারছেন সবাই, ম্যানচেস্টার সিটিতে নেই কোনো পেনাল্টি বিশেষজ্ঞ! যে সমস্যায় রোববার লিভারপুলের মাঠে ফাঁসতে বসেছিল সিটিজেনরা। যদিও শেষঅবধি ভালোভাবেই উতরে গেছে গার্দিওলার শিষ্যরা। দিনশেষে তাতেও পেনাল্টি নিয়েই কোচের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ!

২০০৩ সালের পর লিভারপুলের মাঠ অ্যানফিল্ড থেকে ৪-১ গোলের দারুণ এক জয় নিয়ে ফিরেছে ম্যানসিটি। জোড়া গোল করেছেন জার্মান তারকা ইলকায় গুনডোয়ান, বাকি দুগোল রাহিম স্টার্লিং ও তরুণ ফিল ফোডেনের। ম্যাচের সবগুলো গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। প্রথমার্ধে পেনাল্টি পেয়ে তা বার উঁচিয়ে মাঠের বাইরে পাঠান ম্যাচের নায়ক গুনডোয়ান।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

লিগের সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে বড় জয় পাওয়ায় ম্যাচ শেষে পেনাল্টি সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার বিষয়টি না ভাবালেও কয়েক মৌসুমজুড়ে এ সংকটে ভুগছে ম্যানসিটি। গত মৌসুমে পাঁচটি পেনাল্টি মিস করেছে দলটি, যা প্রিমিয়ার লিগের শত বছরের ইতিহাসে প্রথম।

চলতি মৌসুমেও পেনাল্টি মিসের মহড়া চলছে সিটিতে, এপর্যন্ত ছয় পেনাল্টির তিনটিতে গার্দিওলার কপালে হাত দিতে বাধ্য করেছেন ফুটবলাররা। বাধ্য হয়ে ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এডারসন মোরালেসকে দিয়ে পেনাল্টি নেয়ার বিষয়টি ভাবা শুরু করছেন কোচ।

বিজ্ঞাপন

‘আমাদের এখানে(পেনাল্টি) বেশ ভালো একটা সমস্যা আছে। আসল বিষয় হচ্ছে কোনোভাবেই পেনাল্টি হাতছাড়া করা যাবে না, সেটা যেই নিক না কেনো।’

‘আবারও, আমার মনে হচ্ছে এডারসনকে দিয়েই পেনাল্টি নেয়াতে হবে!’

দিনশেষে যদিও খুশি মনেই অ্যানফিল্ড ছাড়তে পেরেছেন গার্দিওলা। ১৮ বছর পর অ্যানফিল্ড জয়ের সঙ্গে আছে তিন পয়েন্ট পাওয়ার আনন্দ। হারে লিভারপুলের প্রিমিয়ার লিগ হাতছাড়া হওয়া একপ্রকার নিশ্চিত হয়ে গেছে, সঙ্গে গত চার মৌসুমে তৃতীয় লিগ শিরোপা উঁকি দেয়া শুরু করেছে সিটিজেন ডেরায়।

এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পেনাল্টি মিস করার পরও তাই খেলোয়াড়দের মানসিকতার প্রশংসা করেছেন বার্সেলোনা, বায়ার্ন মিউনিউখের সাবেক কোচ পেপ।

‘শেষ পর্যন্ত তিন পয়েন্ট পেয়েছি। আমি খুশি কারণ পেনাল্টি মিস আর গোল খাওয়ার পরও আমরা যেভাবে ফিরে এসেছি, এটাই আসলে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।’