চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গুলির মুখে পালিয়ে আসার ভয়াবহ অভিজ্ঞতা

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্ট নাশভিলের ওয়ালমার্টে বন্দুকধারীর গুলির মুখে পরিবারের সবাইকে নিয়ে দ্রুত বের হয়ে আসার সেই ভয়াবহ মুহূর্ত সবার সামনে তুলে ধরেছেন ওই পরিবারেরই একজন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই হামলাকারী বেপরোয়াভাবে দোকানের ভেতরে থাকা অন্য বিক্রেতাদের উপর গুলি চালাচ্ছিলো।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশি আমেরিকান সাদাত সাদুল্লা তার সাত বছর ও দুই বছর বয়সী দুই ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে যখন সেখানে ছিলেন তখনই গুলির শব্দ শোনেন।

সাদুল্লা ব্যাখ্যা করেন, গুলির শব্দ যখন বন্ধ হলো তখন আমার মাথায় প্রথমে যে বিষয়টি এসেছিলো তা হলো, এখানে আবার সেই কলোরাডো দুর্ঘটনার মতো কিছু ঘটছে না। সেখানে এক উদ্ভ্রান্ত বন্দুকধারী এসে সবাইকে গুলি করা শুরু করেছিলো।

৯১১তে কল দেওয়ার পরে নিশ্চয়ই অ্যালার্ম বাজার সাথে সাথে সবাই হট্টগোল ও আতঙ্ক চিৎকার শুনেছে। পেছনে একটি অ্যালার্ম বাজার সাথে সাথেই একজন কলার কান্না করে বলেন, একজন সক্রিয় বন্দুকধারী আছে।

সাদুল্লা বলেন, সেখানে তখন অনেকেই ছিলো যারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে ও কাঁদতে শুরু করেছে। আমি ভাবছিলাম ‘পেছনের দিকে পালিয়ে যেতে হবে।’

সাদুল্লা খুব শান্তভাবে ও দ্রুত সিদ্ধান্ত নেন। বলেন, প্রথম গুলির শব্দ শুনেই আমি আমার স্ত্রীকে বলি ‘আমাদের এখান থেকে বের হতে হবে। আমাদের দৌড়ে বের হওয়ার দরজায় যেতে হবে, সবাইকে সঙ্গে নিতে হবে, অন্যদের সতর্ক করতে হবে এবং এসবই করতে হবে খুব দ্রুত।’

বিজ্ঞাপন

পরিবার নিয়ে পেছনে যাওয়ার সময় দেখেন, সেখানকার কর্মীরা ক্রেতাদের পেছন দিক দিয়ে বের হয়ে যেতে সাহায্য করছেন।

সাদুল্লার মতে, ওই সময়ের নিজের পায়ের ভরসায় নেওয়া এই দ্রুত সিদ্ধান্ত আমাদের একভাবে বাঁচিয়ে দেয়, কিন্তু পরে যখন আমরা আবার সবকিছু ভাবতে বসি তখন মনে হয় সময়টা সত্যিই খুব ভয়ঙ্কর ছিলো।

সাদুল্লা বলেন, এরআগে শুটিংয়ের প্রশিক্ষণে নিয়েছেন তিনি এবং বিশ্বাস করেন সেটার মূল্য দেওয়া হয়েছে। স্টোরের বাইরে বের হয়েই তার পরিবার নিজেদের ঢেকে ফেলে এবং সাদুল্লা গাড়ি নিতে যান, সেই সময়েই পুলিশ সেখানে পৌঁছে যায়।

তার পরিবার এখনও নিজেদের ওপরে থাকা আশীর্বাদ বিশ্বাস করতে পারছে না। সাদুল্লা বলেন, সেই সময়ে যেকোনো কিছু ঘটতে পারতো। তাই নিজের প্রিয়জনদের হাত ধরুন, তাদের চুমু দিন, জড়িয়ে ধরুন এবং জীবন খুব উপভোগ করুন।

গত ২৩ জুন শার্লট পাইকের ওয়ালমার্ট স্টোরে দুজনের মধ্যে বিতর্ক চলার সময়েই হঠাৎ একজন গুলি করে। তবে তাতে কেউ হতাহত হয়নি।

মেট্রো পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকধারীকে খুঁজে পেতে সবার সাহায্য দরকার। পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকধারী দেখতে বেশ শক্তসামর্থ এবং গুলি চালানোর সময় তার পরনে ছিলো কালো টিশার্ট ও জিন্স।

বন্দুকধারীর সঙ্গে একজন নারীও ছিলো এবং এই ঘটনার পরে সাদা সেডান গাড়িতে করে তারা ওই জায়গা থেকে চলে যায়।