চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কৃষকের ঈদ আনন্দ বেদনা

পৃথিবী আজ বিপন্ন বিষন্ন। সব জাতিগোষ্ঠিকে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে জীবনের সমীকরণ। এ যাবৎকালের ভয়াবহতম মহামারীতে তছনছ হয়ে গেছে সবকিছু। চারদিকে শুধু করোনার অভিঘাত। পৃথিবীর লাখ লাখ মানুষ আক্রান্ত করোনাভাইরাস জনিত রোগ কোভিড -১৯ এ। অদৃশ্য ও ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র এক ভাইরাসের কাছেই মানুষ আজ বড় বেশি পরাজিত। পৃথিবীর দেশে দেশে টান পড়েছে অর্থনীতিতে। খাদ্যে। বাণিজ্যে। চলাচলে। স্বাস্থ্যে। শিক্ষায়। মানুষ যেন আর মানুষ নেই। কীভাবে এই পরিস্থিতি থেকে স্থায়ী উত্তরণ ঘটবে, এমন কোনো আশার আলো এখনও জ্বলেনি কোথাও। নেই শুভবার্তা। এর ভেতরেই জীবনকে নিয়ে হাঁটতে হচ্ছে মানুষকে। এর ভেতরেই স্বপ্ন দেখতে হচ্ছে। এর ভেতরেই রচনা করতে হচ্ছে আগামীর সম্ভাবনা।

পৃথিবীর সবদেশের বাস্তবতা যা-ই হোক। বাংলাদেশের বাস্তবতা একটু ভিন্ন। কারণ, যুগ যুগ ধরে যাবতীয় প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে টিকে থাকাই বাঙালি জীবনের সবচেয়ে বড় সত্য। কৃষি ও গ্রামপ্রধান বাংলা যুগ যুগ ধরে প্রাকৃতিক ও মানুষসৃষ্ট বহু বিপর্যয় ও মহামারি পার করেছে। বহু জীবন ও ত্যাগের বিনিময়ে নিজস্ব ভূমি, সংস্কৃতি, ভাষা ও জাতিগত স্বাধীনতা অর্জন করেছে। পৃথিবীর কাছে হতদরিদ্র ও তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় জাতির গৌরব অর্জন করেছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

যেকোনো দুর্যোগে বাংলাদেশের মানুষের টিকে থাকা ও উঠে দাঁড়ানোর ক্ষমতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। তারা শত বিপর্যয়ের পরও হাসতে পারে। এবারও পারবে। সিডর আইলার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের কথা মানুষ ভুলতে পারেনি। এর মাঝে আঘাত হেনেছে সুপার সাইক্লোন আম্পান। এখনও দেশের উপকুলীয় জেলাগুলোয় প্রাকৃতিক ওই দুর্যোগের অভিঘাত ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এখনও মানুষের জীবন জীবন জীবিকায় রয়ে গেছে তার কঠিন প্রভাব। লবণাক্ত এলাকায় ফসল উৎপাদন করতে না পেরে দুর্বিসহ সংকটে পড়ছে মানুষ। কিন্তু প্রতিনিয়ত সংকটে চলা মানুষের জন্য এই কষ্টও যেন কোনো কষ্ট নয়। তারা পার হয়ে যায় জীবনের পথ।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের কৃষকের কাছে প্রতিকূলতাই স্বাভাবিক। প্রতিনিয়ত তাকে পাড়ি দিতে হয় বিপদসঙ্কুল পথ। মাটির বুক থেকে ফসল ফলিয়ে আনা চাট্টিখানি কথা নয়। শ্রমে ঘামে কৃষক এক অনন্য মানুষ। ঈদে পার্বণে উৎসবে কৃষকই যুগিয়ে দেয় মূল উপকরণ মুখের খাবার। কিন্তু আমরা কি ভেবেছি কৃষকের ঈদের আনন্দ কতটুকু, কতটুকু তার মলিন বেদনার দিন!

শাইখ সিরাজের পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ বেদনা’ প্রচারিত হবে ঈদের পরদিন বিকাল সাড়ে চারটায় চ্যানেল আইতে।