চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: হোম কোয়ারেন্টাইন না মানলে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন

টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলায় অস্থায়ী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টার চালুর উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন।

জেলার মির্জাপুর ও ভূঞাপুরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে ঘোষণা দিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসাবে প্রস্তুত করা হয়েছে। যারা হোম কোয়ারেন্টাইন না মানবে তাদের ও সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন রাখা হবে।

বিজ্ঞাপন

জেলার ভূঞাপুরের ভূঞাপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও মির্জাপুরের পোষ্টকামুরী আলহাজ শফি উদ্দিন মিঞা অ্যান্ড একাব্বর হোসেন টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে এ কোয়ারেন্টাইন সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসক, নার্স, আয়া, বাবুর্চিসহ সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) মোহাম্মদ মহীউদ্দিন জানান, করোনার রোগী পাওয়া গেলে তাদের হাসপাতালের আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হবে। বাকি যারা তাবলীগ, বিদেশ ফেরত বা অন্যস্থান থেকে এসেছে অথবা করোনা রোগীদের সংস্পর্শে গিয়েছিল বা বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইন মানছে না তাদের জন্য ওই বিদ্যালয়ে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হবে। সেখানে সকল ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

তিনি আরো জানান, বিদ্যালয়ের একটি ভবনের দুই কক্ষে ১২টি বেড রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে সেখানে ৮টি বেড তৈরি করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বেডের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. নাসরীন পারভীন জানান, প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ওই বিদ্যালয়কে কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে। সেখানে সকল ধরনের ব্যবস্থা থাকবে। প্রয়োজন পড়লে অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিও প্রস্তুতের জন্য অগ্রিম ব্যবস্থা হাতে রাখা হচ্ছে।

মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল মালেক জানান, মির্জাপুর উপজেলায় যারা হোম কোয়ারেন্টাইন মানবে না তাদেরকে এই প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে।