চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: সারাবিশ্বে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাস ঠিক কোথায় গিয়ে থামবে তার পূর্বধারণা কারো কাছেই নেই। কেউ বলতে পারছে না যে, কীভাবে থামানো যাবে এই মহামারী। এরই মধ্যে সারাবিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ১ লাখ ৭৭ হাজার ৬১১ জন মানুষ।

ওয়ার্ল্ডমিটার বলছে বুধবার সকাল ৭টা পযন্ত বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মৃত্যুর খবর এটি। আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ২৫ লাখ ৫৭ হাজার ১৮১ জন। সর্বাধিক আক্রান্ত ও মৃত্যু দুটাই যুক্তরাষ্ট্রের। দেশটিতে ৮ লাখ ১৮ হাজার ৭৪৪ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছে আর মারা গেছে ৪৫ হাজার ৩১৮ জন।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায়ও যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৮০৪ জন। আর আক্রান্ত হয়েছে ২৫ হাজারের অধিক মানুষ।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও যুক্তরাজ্য, ইটালি, স্পেন, ফ্রান্স, জার্মানিসহ বহু দেশে নিয়মিত করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু হচ্ছে। যুক্তরাজ্যে গতকালও ৮২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইটালিতে ৫৩৪ জন, স্পেনে ৪৩০ জন, ফ্রান্সে ৫৩১ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। জার্মানিতেও বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। দেশটিতে মারা গেছে ২২৪ জনের।

বিশ্বের মোট মৃত্যুর দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই আছে ইটালি-২৪ হাজার ৬৪, স্পেনে ২১ হাজার ২৮২জন, ফ্রান্সে ২০ হাজার ৭৯৬ জন। যুক্তরাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৭ হাজার ৩৩৭ জন মানুষের।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাসে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদেরও মৃত্যুর সংবাদ আসছে। এরই মধ্যে বিভিন্ন দেশে ৩০০ জনের বেশি প্রবাসী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে, যার অধিকাংশই যুক্তরাষ্ট্রে।

এরই মাঝে সারাবিশ্ব ও যুক্তরাষ্ট্রের জন্য আরও আশঙ্কাজনক সংবাদ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রবীণ রোগ বিশেষজ্ঞ।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা -সিডিসির প্রধান রবার্ট রেডফিল্ড বলেছেন, করোনাভাইরাসে দ্বিতীয় পর্ব বর্তমানের চেয়ে খারাপ হতে পারে। আগামী শীত মৌসুমী আমাদের জাতির ওপর ভাইরাসের আক্রমণ বর্তমানের চেয়ে ভয়াবহ হতে পারে। এতে করে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় অকল্পনীয় সৃষ্টি হবে।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, করোনাভাইরাসের সংকট আরও বেড়ে যেতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রকে শুরু থেকেই সব বিষয়ে অবগত করা হয়েছিলো বলে দাবি করা হয় সংস্থাটির পক্ষ থেকে।

এদিকে প্রতারণার অভিযোগ এনে যুক্তরাষ্ট্রের একজন নাগরিক দেশটির মিসৌরির একটি আদালতে চীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, চীন সরকার মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভাইরাস নিয়ে যারা কাজ করবেন তাদের চুপ করিয়ে দিয়েছে।