চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস নিয়ে ‘সঙ্কটময় মুহূর্তে’ যুক্তরাজ্য: বরিস জনসন

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করতে নতুন সব পদক্ষেপগুলো সবার মধ্যে অভ্যস্ত করতে সময় লাগবে।

এক ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, করোনাভাইরাস নিয়ে বর্তমানে যুক্তরাজ্য সঙ্কটময় মুহূর্তে রয়েছে। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে তাই আমরা যেসব পরিকল্পনা নিচ্ছি সেগুলো খুবই প্রয়োজনীয়।

বিজ্ঞাপন

প্রয়োজন পড়লে আরো কঠোর সব নিষেধাজ্ঞা জারি করতেও দ্বিধা করবেন না বলে জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

দেশটির প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা স্যার প্যাট্রিক ভ্যালেন্স বলেন, এই মুহূর্তে পরিস্থিতি আর আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। এখানে আত্মতুষ্টির আর কোনও কারণ নেই।

সর্বশেষ তথ্য বলছে যুক্তরাজ্যে নতুন করে করোনাভাইরাসে আরো ৭,১০৮ জন আক্রান্ত হয়েছে, মৃত্যুবরণ করেছে ৭১ জন।

এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৫৩ হাজার ছাড়িয়েছে, প্রাণ হারিয়েছে ৪২ হাজারেরও বেশি মানুষ।

বিজ্ঞাপন

গত সপ্তাহে জনসন ইংল্যান্ডের পাব, বার এবং রেস্টুরেন্টগুলো রাত ১০ টার মধ্যে বন্ধ করার ঘোষণা দেন। স্কটল্যান্ড এবং ওয়েলসেও একই নিয়ম। বিয়ের আয়োজনে মাত্র ১৫ জনের উপস্থিতির অনুমতি দেওয়া হয়।

তারপর থেকে উত্তর-পূর্ব ইংল্যান্ডসহ আরও কিছু এলাকায় স্থানীয়ভাবে লকডাউন কার্যকর করা হয়েছে। সেখানে বাড়ির ভেতরেও জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। বর্তমানে সারাবিশ্বে ৩ কোটি ৪১ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। প্রাণ হারিয়েছে ১০ লাখ ১৮ হাজারেরও বেশি মানুষ।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, একদিনে সারাবিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৩ হাজারেরও বেশি মানুষ আর প্রাণ হারিয়েছে ৬ হাজার ২০২ জন। একদিনে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ভারতে, ৮৬ হাজার ৭৪৮ জন। এনিয়ে সেখানে মোট আক্রান্ত ৬৩ লাখ ১০ হাজার ছাড়ালো। একদিনে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে ভারতে, ১,১৭৯ জন। দেশটিতে মোট মৃতের সংক্যা ৯৮ হাজার ৭০৮ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে আক্রান্ত হয়েছে ৪০ হাজার ৯২৯ জন, মোট আক্রান্ত ৭৪ লাখ ৪৭ হাজারেরও বেশি। একদিনে ৯৫৫ জনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মোট মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ১১ হাজার ছাড়িয়েছে।

তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে একদিনে আক্রান্ত ৩৩ হাজার আর মৃত ৯৫২ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৪৮ লাখেরও বেশি মানুষ, মৃত ১ লাখ ৪৩ হাজারেরও বেশি।