চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘এভাবে কি আপনি মহানায়ক হতে পারবেন?’

দাপুটে অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী নেই। মেঘে ঢাকা তারা হয়ে গেছেন গেল শুক্রবার ভোরে। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বাংলা ভাষাভাষি সিনেমা প্রেমী মানুষেরা। তার উদ্দেশ্যে শোক জানিয়েছেন ঢাকা, কলকাতার শোবিজ অঙ্গনের মানুষেরাও। কথা বলেছেন তার ক্যারিয়ার ও ব্যক্তি জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়েও। বিশেষ করে সুপ্রিয়া দেবীর মৃত্যুর পর উত্তম কুমারের সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয়টিই মোটামুটি আলোচিত। উত্তম-সুপ্রিয়ার সম্পর্ক নিয়ে কথা বলতে অনেকে এক হাত নিয়েছেন কলকাতার জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল স্টার জলসার সিরিয়াল ‘মহানায়ক’কে। আর এটিকে ধরে ‘মহানায়ক’ চরিত্রে অভিনয় করা কলকাতার সিনেমার বর্তমান দাপুটে অভিনেতা প্রসেনজিতের প্রতি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিচ্ছেন অনেকে।

দেশের জনপ্রিয় গীতিকার প্রিন্স মাহমুদও প্রশ্ন তুলেছেন প্রসেনজিৎ অভিনীত ‘মহানায়ক’ সিরিয়ালটি নিয়ে। তারমতে এই সিরিয়ালে যা দেখানো হয়েছে তা অসত্য। এই সিরিয়াল নিয়ে নাকি বিরক্ত ছিলেন স্বয়ং সুপ্রিয়া দেবী। তিনি নিজে প্রসেনজিতের ‘মহানায়ক’কে অসত্য বলে গেছেন। আর তাই প্রসেনজিতের এমন আচরণ যেন মেনে নিতে পারছেন না দেশের এই তারকা গীতিকার। সুপ্রিয়া দেবীর মৃত্যুর পর প্রিন্স মাহমুদের দেয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে ধরা হল। স্ট্যাটাসের মন্তব্য ঘরে তিনি সুপ্রিয়া দেবীর সাক্ষাৎকারটিও সংযুক্ত করেছেন:

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘‘সারা পৃথিবী গতকাল কিংবদন্তী অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী’র শারীরিক মৃত্যু দেখলেও তাঁর আত্মার মৃত্যু হয়েছে দেড় বছর আগেই যখন স্টার জলসায় ‘মহানায়ক’ নামে একটা সিরিয়াল শুরু হয়েছিল।

গতকাল অবাক হয়ে দেখলাম নায়ক বাবু প্রসেঞ্জিত তাঁর মৃত্যু নিয়ে কেঁদে কেঁদে খুব মিষ্টি মিষ্টি কথা বলছেন। অথচ এই সিরিয়ালের নায়ক এবং পেছনে ছিলেন সম্পূর্ণভাবে তিনি।

বিজ্ঞাপন

আমি নিশ্চিত সুপ্রিয়া দেবী নরক যন্ত্রণা সেই সময় থেকেই ভোগ করছেন। আনন্দপ্লাস এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন ‘আমাকে ওরা রাস্তার মেয়ে করে ছাড়ল। জঘন্য। সব মিথ্যে। দেখতে শুরু করেছিলাম। কৌতূহল নিয়েই। খানিকটা দেখার পর আর সহ্য করতে পারলাম না। বন্ধ করে দিয়েছি।

আরম্ভটাই তো আপত্তিকর বলছে, ‘‘তাঁর চারপাশে ভিড় করতে লাগলেন ইচ্ছা-পূরণের নায়িকারা।’’ ধরে ধরে এক এক করে দেখানো হল রমাদি (সুচিত্রা সেন), সাবু (সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়) আর আমাকে। আমরা আমাদের ইচ্ছে-পূরণের জন্য উত্তমকুমারের চারপাশে ভিড় জমিয়েছিলাম? ছিঃ!

প্রসেনজিৎ বাবু কী বলবেন?
পাশ কাটিয়ে যাওয়ার জন্য কী বলা যায় ? কী আপনি বলেছিলেন পরে হয়তো সুপ্রিয়া দেবীর কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে তাঁর কলিগের বন্ধুর ছেলে হওয়ার সুবাদে? সুচিত্রা সেন আগে বিদায় নিয়ে ভালই করেছেন। ওর জীবন নিয়ে এই অসত্য তিনি সহ্য করতে পারতেন না। আমি নিশ্চিত উত্তম কুমার বেঁচে মস্ত কাণ্ড ঘটে যেত।

কিংবদন্তী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কেও খলনায়ক বানিয়েছেন আপনি এবং আপনার বন্ধুরা সামান্য নাম আর আলোচনায় থাকার জন্য। এভাবে কি আপনি মহানায়ক হতে পারবেন?

এই ধৃষ্টতা আমরা অতি সাধারণ উত্তম, সুচিত্রা, সুপ্রিয়া, সাবিত্রীর ‘আপনার চেয়ে আপন যে জনেরা’ কেমন করে নেব ? কী করে…’’