চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ও জাপান যৌথ উদ্যোগে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স একাডেমি

বাংলাদেশ ও জাপান যৌথ উদ্যোগে দেশে স্থাপিত হতে যাচ্ছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) একাডেমি। বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠান ড্রিম ডোর সফট ও জাপানের এনটিটি অ্যাডভান্সড টেকনোলজির এই উদ্যোগে বাংলাদেশের তরুণরা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং রোবটিক প্রসেস অটোমেশনের উপরে আধুনিক ও যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ পাবে।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জাপানের টোকিওতে ড্রিম ডোর সফট’র ডিরেক্টর ড. খান মোহাম্মদ আনোয়ারুস সালাম এবং এনটিটি অ্যাডভান্সড টেকনোলজির পক্ষ থেকে ফুকাশি আদানিয়া এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এই বিষয়ে চুক্তি সাক্ষর হয়।

বাংলাদেশে ড্রিম ডোর সফট বিশ্বের টেক জায়ান্ট কোম্পানিগুলোকে বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং এর ব্যাপারে সহায়তা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় চুক্তির আওতায় বাংলা ভাষা এবং বাংলাদেশের প্রযুক্তিকে জাপানসহ বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার জন্য এনটিটি অ্যাডভান্সড টেকনোলজির সাথে যৌথভাবে কাজ করবে ড্রিম ডোর সফট।

বিজ্ঞাপন

জাপান-বাংলাদেশের বন্ধুত্বের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আগামী বছর বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে দুই দেশের ব্যবসায়িক সম্পর্ক আরও মজবুত করার জন্য এই যৌথ উদ্যোগ নিয়ামক হিসেবে কাজ করবে বলে মনে করছেন উদ্যোক্তারা। এর মাধ্যমে রোবোটিক প্রসেস অটোমেশন (RPA) এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে কিভাবে জাপানের সরকারী অফিস, ব্যাংক, ইন্সুরেন্স এবং ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিচালিত হচ্ছে, সে অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে বাংলাদেশের কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহায়তা দেয়া হবে।

চলমান বিশ্বমন্দার ঢেউ কাটিয়ে তুলতে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভর্তুকি প্রদানের মাধ্যমে প্রযুক্তির প্রসারে সহায়তা করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে বাংলাদেশের তরুণদের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং রোবটিক প্রসেস অটোমেশন এ দক্ষ জনবল তৈরির লক্ষ্যে ড্রিম ডোর সফট তাদের এ. আই. একাডেমি’র মাধ্যমে ট্রেনিং/ওয়ার্কশপ আয়োজন করছে।

ট্রেনিং এ অংশকারীদের জাপানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত অভিজ্ঞদের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবেন। আগ্রহীরা ড্রিম ডোর সফটের এর ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন। ওয়েবসাইটের ঠিকানা: www.dreamdoorsoft.com