চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ঈদে নানা বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার শিশু

ঈদে নানার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছে চতুর্থ শ্রেণি পড়ুয়া ৯ বছর বয়সী এক শিশু। ৫ মে বুধবার দুপুরে শেরপুরে শ্রীবরদী উপজেলার তাতিহাটি ইউনিয়নের জানকিখিলা হাফেজিয়া মাদ্রাসার পরিত্যক্ত টিনসেড ঘরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ধর্ষক আকরাম হোসেনকে (৩৫) হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ধর্ষিতা শিশুকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শেরপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধর্ষক আকরাম হোসেন জানকিখিলা গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়: রাজধানী ঢাকার উত্তরার একটি কেজি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ওই শিশুর গ্রামের বাড়ী শেরপুরের শ্রীবরদীর তাতিহাটি ইউনিয়নের জানকিখিলা গ্রামে। রিক্সাচালক বাবা ও গার্মেন্টকর্মী মা’র সাথে ঈদ উপলক্ষে শিশুটি গ্রামের বাড়িতে আসে।

ঈদের দিন বুধবার শিশুটি পার্শ্ববর্তী শালমারা গ্রামে তার নানার বাড়ি বেড়াতে যায়। নানাবাড়ির পাশে জানকিখিলা হাফেজিয়া মাদরাসা মাঠে মাঠে কয়েকজন শিশুর সাথে খেলার সময় বখাটে আকরাম হোসেন শিশুটিকে বিস্কুট দেয়ার কথা বলে কৌশলে মাঠ সংলগ্ন মাদ্রাসার পরিত্যক্ত টিনসেড ঘরে নিয়ে দরজা বন্ধ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ধর্ষক আকরাম হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান: শিশু ধর্ষণকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।