চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইসিসির নতুন চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে

লম্বা আর খিটমিটে প্রক্রিয়া নিয়ে ধোঁয়াশা বাড়ছিল। খানিকটা সন্দেহও ছিল। শেষ পর্যন্ত সবকিছুকে পাশ কাটিয়ে আইসিসির নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের (এনজেডসি) সাবেক প্রধান গ্রেগ বার্কলে।

দ্বিতীয় দফায় ভোটাভুটির পর সাউথ আফ্রিকার সমর্থন নিজের পক্ষে টেনে ১১ ভোট নিশ্চিত করেছেন বার্কলে। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী ১৬ দেশের ভোট থেকে আইসিসি প্রধান হতে অন্তত ১১ ভোট লাগবেই। সাউথ আফ্রিকার ভোট পাওয়ার পর সেটি নিশ্চিত হয়েছে, এরপরই বিজয়ী ঘোষণা করা হয় বার্কলেকে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

প্রথম দফায় ১০ ভোট পেয়েছিলেন বার্কলে, তার প্রতিদ্বন্দ্বী আইসিসির অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ইমরান খাজা পান ৬ ভোট। সংস্থাটির প্রথম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহর গত জুলাইয়ে সরে দাঁড়ানোর পর আপদকালীন সময়ে আইসিসির দায়িত্বে ছিলেন খাজা। তিনি কোনো নির্দিষ্ট দেশের প্রতিনিধি ছিলেন না।

বার্কলে নির্বাচিত হওয়াটা বেশ ধোঁয়াশা সৃষ্টি করেছে। কারণ এবারের নির্বাচন প্রক্রিয়া ছিল বেশ গোপনীয় ও সময়সাপেক্ষ। বড় ব্যাপার, বার্কলে নির্বাচিত হওয়ায় বড় সমস্যায় পড়তে চলেছে খোদ আইসিসিই। ২০২৩ থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত প্রতিবছর একটি করে বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট আয়োজন করার জন্য সদস্য দেশগুলোকে যে চাপ দিচ্ছিল সংস্থাটি, বার্কলে নিজেই তার ঘোরতর বিরোধী!

বিজ্ঞাপন

বছরের শুরুতে বার্কলে জানিয়েছিলেন, সদস্য দেশগুলোকে নিজেদের মতো করে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজন করতে দেয়ার অনুমতি দিতে হবে। ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও সাউথ আফ্রিকার সঙ্গে মুম্বাইয়ে এক বৈঠক শেষে নিউজিল্যান্ড বোর্ডের সাবেক প্রধান সাক্ষাৎকারে জানান, আইসিসির টুর্নামেন্টগুলোর উপর নির্ভর থাকতে রাজি নন তারা।

প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হয়ে বার্কলের প্রধান প্রতিশ্রুতি ছিল, আইসিসি ও দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলোর মধ্য ভারসাম্য আনবেন।

অন্যদিকে, নির্দিষ্ট কোনো দেশের প্রতিনিধিত্ব না করা খাজা চেয়েছিলেন প্রতিবছর একটি করে টুর্নামেন্ট আয়োজনের। ২০২৩ থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ (নারী-পুরুষ উভয়), চারটি টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ও সেরা ছয় দলকে নিয়ে একটি আলাদা টুর্নামেন্ট আয়োজনের পক্ষে ছিলেন খাজা।

২০১২ সাল থেকে এনজেডসির পরিচালক পদে ছিলেন বার্কলে। এখন আইসিসির প্রধান নির্বাচিত হওয়ায় সেই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতে হবে সাবেক এ আইনজীবীকে।