চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘অনুরাধা পাড়োয়াল আমার মা’-এমন দাবিতে ক্ষুব্ধ শিল্পী

৬৭ বছর বয়সী বলিউডের কিংবদন্তি শিল্পী অনুরাধা পাড়োয়ালকে মা দাবি করে সম্প্রতি সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন কেরালার ৪৫ বছর বয়সী নারী করমালা মোডেক্স। আর এমন দাবির প্রেক্ষিতে বেজায় চটেছেন ভারতীয় অসংখ্য শ্রোতাপ্রিয় গানের শিল্পী অনুরাধা পাড়োয়াল।

কেরালার বাসিন্দা করমালা মোডেক্স নিজেকে অনুরাধা পাড়োয়ালের সন্তান দাবি করে জেলা ফ্যামিলি আদালতে একটি মামলাও দায়ের করেন। কর্মালা জানান, তিনি অনুরাধা ও তার প্রাক্তন স্বামী অরুণ পাড়োয়ালের সন্তান। সেইসময় প্লে-ব্যাক গায়িকা হিসেবে ধীরে ধীরে খ্যাতির শিখরে উঠছিলেন অনুরাধা। ফলে তিনি সন্তানের দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেন। তাই জন্মের পরই পরিবারের ঘনিষ্ঠ মালয়ালি দম্পতি পন্নাচন ও অ্যাগনেসের হাতে তাকে তুলে দেন অনুরাধা। তারাই করমালাকে বড় করেন।

বিজ্ঞাপন

করমালা আরো জানান, পালক পিতা পন্নাচন দীর্ঘদিন মেয়ের কাছ থেকে সত্যিটা লুকিয়ে রেখেছিলেন। মৃত্যুর আগে তাকে সব কথা বলে যান। পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত গায়িকার কাছে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৫০ কোটি টাকা ও পাড়োয়াল সম্পত্তির অংশও দাবি করেন। এমনকি মা হিসেবে অনুরাধাকেও ফিরে পেতে চান বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে এসব ঘটনা সংবাদের শিরোনামে আসায় অনুরাধার কাছে এমন দাবির বিষয়ে জানতে চাইলে ভারতীয় গণমাধ্যমের সাথে কোনো কথাই বলতে রাজি হননি শিল্পী। এ বিষয়ে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘কেউ মূর্খের মতো কোনও মন্তব্য করলে তার উত্তর আমি দেব না। এটা আমার রুচির বিরুদ্ধ।’

তবে অনুরাধার মুখপাত্র করমালাকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, অনুরাধার মেয়ে কবিতা ১৯৭৪ সালে জন্মেছিলেন। তাই কর্মালার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে। অনুরাধার স্বামীর কথাও বলছে কর্মালা। কিন্তু সে জানেই না তিনি প্রয়াত হয়েছেন।

করমালা একজন বিবাহিতা নারী। ৩ সন্তানের মা। তিনি জানান, বহুবার চেষ্টা করেও অনুরাধা পাড়োয়ালের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি। তার করা মামলার শুনানি ২৭ জানুয়ারি। প্রয়োজনে ডিএনএ পরীক্ষাতেও রাজি তিনি।