চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সিনেপ্লেক্স বাড়ছে, হতাশা কমছে: ইমন

করোনার কারণে সিনেমা হল বন্ধ ছিল। এরমধ্যে জানা যায় একের পর এক সিনেমা হল চিরতরে বন্ধ হচ্ছে। এতে করে ভেতরে ভেতরে অনেকটা হতাশায় পড়েছিলেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা।

তবে দেশে একের পর এক মাল্টিপ্লেক্স নির্মাণের খবরে সেই হতাশা যেন অনেকটাই কমতে শুরু করেছে। বিশেষত পর্দার সামনের মানুষেরা এমন খবরে খুবই আপ্লুত।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সেই কথার সূত্র ধরেই চিত্রনায়ক ইমন জানালেন, ‘বর্তমানে দেশে যে হারে সিনেপ্লেক্স বাড়ছে এতে সেই হতাশা আর অনিশ্চয়তা অনেকটা কেটে যাচ্ছে।’

বুধবার মানিকগঞ্জে শুটিং করছিলেন ইমন। সেখান থেকে মুঠোফোনে চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ‘সিনেপ্লেক্স বাড়ছে, হতাশা কমছে’।

বিজ্ঞাপন

লকডাউন পরবর্তী একের পর এক সিনেমায় অভিনয় করে যাচ্ছেন চিত্রনায়ক ইমন। তবে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে তিনি লম্বা সময় গৃহবন্দী ছিলেন। সেখান থেকে ফিরে বর্তমানে নয়টি সিনেমা করছেন। সাতটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায়। দুটির শুটিং শুরু হয়নি।

ইমনের মুক্তির অপেক্ষায় থাকা সিনেমাগুলো হচ্ছে ‘আগামীকাল’, ‘বীরত্ব’, ‘কানামাছি’, ‘আবার’, কাগজ দ্য পেপার, মাফিয়া, বিয়ে আমি করবো না। অন্যদিকে আকবরের শুটিং শুরু হলেও শেষ হয়নি এবং ‘ব্লাড’ মহরত হলেও শুটিং শুরু হয়নি।

ইমন বলেন, করোনার কারণে দীর্ঘদিন সিনেমা হলে সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে না। কিন্তু নাটক বা ওটিটি -তে যারা কাজ করছে তাদের কাজ নিয়মিত দেখতে পাচ্ছি। সেদিক থেকে মাঝেমধ্যে খারাপ লাগতো। কারণ দীর্ঘদিন পর্দায় নেই। এরমধ্যে আরও হতাশার খবর হচ্ছে একের পর এক সিনেমা হল বন্ধ হচ্ছে। তবে হতাশা কাটছে সিনেপ্লেক্স বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে। চ্যানেল আই অনলাইনে নিউজে দেখলাম বগুড়াতে একটি বড় সিনেপ্লেক্স চালু হচ্ছে। এছাড়া স্টার সিনেপ্লেক্স জেলায় জেলায় পুলিশ প্লাজাতে সিনেপ্লেক্স চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আধুনিক থিয়েটার বৃদ্ধির খবরগুলোতে স্বস্তি পাচ্ছেন নায়ক ইমন। তিনি বলেন, সামনে অনেক ভালো ভালো সিনেমা আসছে। আজ মানিকগঞ্জে ‘কাগজ দ্য পেপার’ সিনেমার শুটিং করছি। একেবারে গল্পনির্ভর সিনেমা। কলকাতার প্রসেনজিত দাকে আমরা যেমন ভিন্নধারার সিনেমা দেখি ঠিক তেমন ধাঁচের সিনেমা ‘কাগজ দ্য পেপার’। এখানে মূলত একজন বিখ্যাত লেখকের জার্নি আছে।

সিনেমা নিয়ে আশাবাদী ইমন বলেন, সবকিছু কাটিয়ে আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছি। শেষ থেকে আবার সব শুরু হয়। আমাদের সিনেমাও আবার নতুন করে ঘুরে দাঁড়াবে। শত প্রতিকূলতা মোকাবেলা করলেও যখন সবাই কাজে ফিরেছে আমিও কাজ শুরু করেছি। আর যাই হোক বসে ছিলাম না। এই বছরের শুরুতে বিভিন্ন ধরনের কাজের মধ্যে দিয়ে কেটেছে। সামনে সিনেমাগুলো মুক্তি পেলে অবশ্যই দারুণ কিছু হবে। আমাদের ইন্ডাস্ট্রি আবার ঘুরে দাঁড়াবে বলে বিশ্বাস করি। আমি সবসময় আশাবাদী মানুষ। সামনে ভালো কিছু দেখতে পাচ্ছি।