চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রথম সিনেমার জন্য যে গল্প বেছে নিলেন শরাফ আহমেদ জীবন

শরাফ আহমেদ জীবন মূলত নির্মাতা। তবে এখন অভিনেতা হিসেবে পরিচিত! বিশেষ করে কাজল আরেফিন অমির ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এ ‘বোরহান’ চরিত্রটি তাকে ব্যাপক আলোচনায় আনে। একই নির্মাতার ‘ফিমেল’-এর দুই কিস্তিতে ‘লাবু কমিশনার’ চরিত্রের মাধ্যমেও জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন জীবন।

নিয়মিত অভিনয় করলেও জীবন চান, নির্মাতা হিসেবে মানুষের কাছে পৌঁছুতে! শুরু থেকে চাচ্ছিলেন সিনেমা বানাতে। কিন্তু বানিয়েছেন নাটক ও বিজ্ঞাপন। এখন তার অভিনয় যেহেতু মানুষ পছন্দ করছেন, তাই অভিনয়কে তিনি ‘উপরি পাওনা’ মনে করেন!

Reneta June

নির্মাণ ভাবনা থেকে ২০২১-২২ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে ‘বিচারালয়’ নামে একটি সিনেমার জন্য আবেদন করেছিলেন শরাফ আহমেদ জীবন এবং ৬৫ লাখ টাকা অনুদানও পেয়ে যান।

বিজ্ঞাপন

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে জীবন জানান, নানা সীমাবদ্ধতা থাকলেও এদেশে শক্তিশালী কনটেন্ট বানানোর সুযোগ আছে। তিনি বিশ্বাস করেন, কনটেন্ট ভালো হলে সেটাই মানুষকে টানবে, নায়ক-নায়িকা থেকে অনেককিছু ছাড় পাওয়া যায়।

‘বিচারালয়’ নিয়েই কথা হয় পরিচালক জীবনের সঙ্গে। মুঠোফোনে তার কথাগুলো ছিল এমন, ‘অনুদানে বেশিরভাগই দেশপ্রেম, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক গল্প দিয়ে থাকে। কিন্তু আমি সাধারণ মানুষের গল্প দিই। মানুষের ভেতরে আরেকটা মানুষ বাস করে, সেই গল্প এটি। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে গল্পটা সাজিয়ে আবেদন করি। আমার বিশ্বাস ছিল, অনুদান কমিটিতে যারা আছেন তারা যদি আমার চিত্রনাট্যটা ঠিকভাবে পড়েন তবে অবশ্যই গল্পটা নিয়ে তাদের মধ্যে ভালো লাগা জন্মাবে।’

‘বিচারালয়’ সিনেমার মূল গল্প নির্মাতা শরাফ আহমেদ জীবনের, চিত্রনাট্য করেন নাহিদ হাসনাত। সিনেমাটির প্রেক্ষাপট ‘ক্ষমা’ উল্লেখ করে ‘সিরিয়াস একটা কথা আছে’ নাটকের এ নির্মাতা বলেন, ক্ষমা মহত্বের লক্ষণ। এটাই সিনেমার বিষয়বস্তু। কোনো নাচ গানে ভরপুর বাণিজ্যিক সিনেমা না। আমাদের ও আপজনদের জীবন-আত্মার গল্প নিয়েই নির্মিত হবে ‘বিচারালয়’।

নির্মাতা জীবন আরও বলেন, গল্পটি যদি অনুদান না পেতাম তবে নিজেই হয়তো অন্যভাবে বানানোর চেষ্টা করতাম। কারণ গল্পটা খুবই মানবিক স্পর্শের জায়গার। যেহেতু অনুদান মিলেছে এতে আরও বাজেট যুক্ত করে সিনেমাটা ভালো করে বানাবো। কারণ, আমার কাছে আরও গল্প থাকলেও এই গল্পে আমার ‘একটু বেশি আগ্রহ’।

যোগ করে তিনি বলেন, অনুদান কমিটি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের চলচ্চিত্র শাখায় যারা যুক্ত আছেন সবার কাছে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই এমন ভালো কাজের পৃষ্ঠপোষকতায় এগিয়ে আসার জন্য। এখনও কাস্টিং চূড়ান্ত করিনি, তবে ভাবনায় আছে। গল্প অনুযায়ী আবহাওয়া ডিম্যান্ড করে শুকনো মৌসুম। ব্যাটেবলে মিলে গেলে চলতি বছরের শেষ শুটিং করবো।