চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Oikko

সাফে খেলতে এসএসসি দেবেন না বাংলাদেশের ৮ ফুটবলার

অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপ

Oikko SME

চলতি বছরের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেয়ার কারণে পরীক্ষা দেবেন না বাংলাদেশ দলে ডাক পাওয়া ৮ ফুটবলার।

Reneta June

বুধবার বাফুফে ভবনে সংবাদ সম্মেলনে ২৩ জনের দল দেয়া হয়েছে। ডাক পাওয়াদের মধ্যে আট ফুটবলার এসএসসি পরীক্ষার্থী। যারা দেশের হয়ে খেলার জন্য এবছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অধিনায়ক ও ডিফেন্ডার মোহাম্মদ ইমরান খান, পারভেজ আহমেদ, মোহাম্মদ সোহানুর রহমান, সজল ত্রিপুরা, মিরাজুল ইসলামরা এসএসসি পরীক্ষা না দিয়ে সাফে খেলতে শ্রীলঙ্কায় যাবেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে অধিনায়ক ইমরান বললেন, ‘সামনে এসএসসি পরীক্ষা থাকলেও দেশের হয়ে খেলার জন্য আমরা ত্যাগ স্বীকার করছি। একবছর ড্রপ দিয়ে সামনের বছর পরীক্ষায় অংশ নেবো। আমিসহ ছয়জন বিকেএসপির ফুটবলার পরীক্ষা দেবো না। বাকি দুইজন বিকেএসপির বাইরের ফুটবলার।’

‘ভারতে হওয়া সাফ অনূর্ধ্ব-২০ চ্যাম্পিয়নশিপের ৬-৭ জন ফুটবলার এই দলে আছে। গোল স্কোরিংয়ের জন্য কাজ করেছি। স্ট্রাইকার হিসেবে মিরাজুল আছে। একবছর ধরে আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। ফাইনালে খেলা আমাদের প্রথম লক্ষ্য।’ বলেন ইমরান।

গত ৫ আগস্ট সাফ অনূর্ধ্ব-২০ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে নির্ধারিত সময় পর্যন্ত লড়ে গেলেও অতিরিক্ত সময়ে গিয়ে আর পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। সেই হার যে দলের ফুটবলারদের তাতিয়ে দিয়েছে, সেটি জানিয়ে অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা নির্ধারণী লড়াইয়ে ভারতকেই প্রতিপক্ষ হিসেবে চান ইমরান।

‘ভারতের সঙ্গে হারের পর খারাপ লেগেছে। আমরা প্রতিপক্ষ হিসেবে ভারতকে চাই। তারা প্রতিপক্ষ হলেও ইনশাল্লাহ আমরা চ্যাম্পিয়ন হবো। সামনের মাসে ঘরের মাঠে এএফসির বাছাইপর্বের খেলা আছে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপে ভালো খেললে এএফসি টুর্নামেন্টে খেলা সহজ হবে।’

ফিফার নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রতিযোগিতায় ভারতের খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিল। নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় তারা অংশ নিতে পারবে। তাতে খুশির কারণটা অকপটে সবার সামনে প্রকাশ করে দিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

‘আমরা যখন ভারতের কাছে হেরেছি, খারাপ লেগেছে। এরপর আমরা যখন দেশে ফিরলাম, তখন শুনলাম ভারত এই টুর্নামেন্টে খেলবে না। তখন সবাই বলেছে, ওরা খেললে ভালো হতো। কেননা, ফাইনালে আমরা প্রতিপক্ষ হিসাবে ভারতকেই চাই।’

‘ওদের কাছে বারবার হারছি, তো সবার ভেতরে একটা জেদ আছে। এবার যদি ভারত-বাংলাদেশ ফাইনাল হয়, সবার মধ্যে এই আত্মবিশ্বাস কাজ করছে- এবার আমরা জিতব। এবার ওদেরকে হারিয়ে আশা করি শিরোপা জিতব।’

স্কোরিং নিয়ে দুর্ভাবনা থাকলেও ভারতের ভুবনেশ্বরের হওয়া সাফ অনূর্ধ্ব-২০ চ্যাম্পিয়নশিপে চার গোল করা মিরাজুল ইসলাম থাকায় স্বস্তিতেও আছেন ইমরান।

‘স্কোরিংয়ে আমাদের কমতি আছে। স্কোরিংয়ের (কমতির) জন্যই আমরা একটু পিছিয়ে আছি। আশা করি এই আসরে এটা হবে না, ভালো কিছুই হবে। আমাদের যে স্ট্রাইকার মিরাজ, ও পুরোপুরি ফিট আছে।’

Oikko Uddokta