চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়েল-রিলের ম্যাজিক: কেউ ভাবছেন প্রতিদ্বন্দ্বী

Nagod
Bkash July

গেল শুক্রবার মুক্তি পাওয়া রায়হান রাফী পরিচালিত ‘দামাল’ ছবিতে পাল্লা দিয়ে অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ ও শরিফুল রাজ! ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত এ ছবিতে দুর্জয় ও মুন্না চরিত্রে দু’জনের দুর্দান্ত অভিনয় মুগ্ধ করছে দর্শকদের।

Reneta June

হয়তো এ কারণে কেউ কেউ সিয়াম-রাজকে পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করছেন! তুলনা করছেন, কার চেয়ে কে ভালো করেছেন! দুই তারকার ভক্ত অনুরাগীরাও আলাদা আলাদা করে প্রিয় তারকাকে এগিয়ে রাখছেন!

সুপারস্টার শাকিব খান পরবর্তী ঢাকাই সিনেমায় আরিফিন শুভ’র মধ্যেই সম্ভাবনা খুঁজে পেতেন সিনেবোদ্ধারা। বেশকিছু সিনেমায় সে প্রমাণও দিয়েছেন এই তারকা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বায়োপিকে শুভ কেমন করছেন, তারউপরও অনেক কিছু যেনো নির্ভর করছে! অন্তত ঢাকাই সিনেমার নিয়মিত দর্শকের হাবভাব এমনটাই! তবে শুভ’র প্যারালাল সময়ে বেশ আলোচনা তৈরী করেছেন সিয়াম আহমেদ।

বেশকিছু দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়ে এই নায়ক পৌঁছে গেছেন দর্শকের হৃদয়ে। পোড়ামন ২, দহন, শান এর মতো সিনেমা দিয়ে যে আলোচনা তৈরি করেছিলেন সিয়াম; ‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’র মতো সুপারহিট সিনেমা দিয়ে সেই শিবিরে যেনো কিছুটা ধাক্কা দিলেন শরিফুল রাজ!

রাজের দুর্দান্ত অভিনয়,চরিত্র নিয়ে ডেডিকেশন- সব মিলিয়ে হালের এই নায়কের অমিত সম্ভাবনা দেখছেন সিনেমার মানুষরা। আর এসব কিছুর কারণেই সমসাময়িক তারকার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতার কাঠগড়ায় তুলছেন দর্শক! তাদের কানেও পৌঁছেছে তুলনামূলক সেইসব আলোচনা!

‘দামাল’র প্রচারণায় সিয়াম-রাজকে গলায় গলায় দেখা যাচ্ছে। এতে তাদের বন্ধুত্ব অনেকটাই প্রতীয়মান। তবে দর্শকরা যে তুলনা করছেন বিষয়টি হয়তো চোখ এড়ায়নি সিয়াম-রাজের। দর্শকদের মনে প্রশ্নটি বারবার উঁকি দিচ্ছে, সিয়াম-রাজ পরস্পরকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করেন নাতো?

এই প্রশ্নটি ছিল তাদের দুজনের কাছেই। উত্তরটা রাজ দিলেন আগে। বললেন, প্রতিদ্বন্দী ভেবে আমরা সিনেমা করিনি। আমাদের দেশে মাল্টিকাস্ট করে সিনেমা কম হয়। প্রতিদ্বন্দ্বী না ভেবে যে যেমন ক্যারেক্টার পেয়েছে সেটা সঠিকভাবে করার চেষ্টা করেছি। কাজ ভালো করতে পারলে ইন্ডাস্ট্রির লাভ হবে এটাই ভেবেছি।

‘সিয়াম আমার কাছের বন্ধুদের একজন। গত ১০ বছর ধরে তাকে চিনি। যখন সিনেমা করিনি, টুকটাক মডেলিং করতাম তখন থেকে সিয়াম আমার ঘনিষ্ট বন্ধু। আমি সিনেমায় নিয়মিত হওয়ার আগেই সিয়াম হিট সিনেমা দিয়েছে। তখনই সিয়াম আমাকে উৎসাহ দিয়ে বলতো, রাজ তোর সিনেমা করা উচিত। তাই তাকে আমি প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করবো এটা ভাবতেই পারি না। আমরা একসঙ্গে মিলে সুন্দর কাজ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।’


এ প্রসঙ্গে সিয়াম বলেন, যখন থেকে দর্শক রাজ এবং আমার কম্পারিজন (তুলনা) দিচ্ছেন, এর ১০ বছর আগে থেকে আমরা ক্লোজ ফ্রেন্ড। আমরা দুজনেই এমন এমন কঠিন অভিজ্ঞতা পার করে এসেছি যে একজনের সাকসেসে আরেকজনের খারাপ লাগে না। আমার বন্ধু রাজ যদি ভালো করে এগিয়ে যায় সেটা আমার জন্যেও আনন্দের বিষয়। আমি মনে করি, রাজের জার্নিটা সবে শুরু হলো। সামনে তাকে আরও পথ পাড়ি দিতে হবে।

তবে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, স্ক্রিনে সিয়াম-রাজের যদি প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকেও থাকে তবে ইন্ডাস্ট্রির স্বার্থে সেটি ইতিবাচক! ভালো কাজের জন্য তাদের মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগিতা থাকলে ভালো ছবির সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। দর্শক হলমুখী হবে। দিনশেষে ইন্ডাস্ট্রি লাভবান হবে!

BSH
Bellow Post-Green View