চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ভালোবাসা নয়, জীবনের গল্প নিয়ে এই সিনেমা’

মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন

মৌসুমী, ফজলুর রহমান বাবু ও প্রাণ রায় অভিনীত সরকারি অনুদানের ছবি ‘ভাঙন’ এর প্রথম লটের শুটিং সম্পন্ন

২০১০-২০১১ অর্থ বছরে সরকারি অনুদান নিয়ে ‘হরিজন’ নামে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন। ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে আবারও সরকারি অনুদান পেয়েছেন এই নির্মাতা। এবার নির্মাণ করছেন ‘ভাঙন’ নামের একটি সিনেমা। এরইমধ্যে শুরু হয়েছে সিনেমাটির শুটিং।

নিজের লেখা ছোট গল্প ‘মোহন গায়েনের বাঁশি’ অবলম্বনে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন সাখাওয়াৎ। ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে টানা পাঁচদিন তেজগাঁও রেলস্টেশন ও আশপাশের এলাকায় হয়েছে শুটিং।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

চ্যানেল আই অনলাইনকে এই নির্মাতা বলেন, স্টেশনের ছিন্নমূল মানুষদের নিয়ে ‘ভাঙন’ এর গল্প। তাই শুটিংস্পট হিসেবে বেছে নিয়েছি তেজগাঁও রেলস্টেশনে।

বিজ্ঞাপন

প্রথম লটের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী, ফজলুর রহমান বাবু, প্রাণ রায়, মির্জা আফরীন, খলিলুর রহমান কাদেরী সহ আরো অনেকে।

‘ভাঙন’ এর গল্প নিয়ে এই নির্মাতা জানান, এই সিনেমায় চিত্রনায়িকা মৌসুমী চুড়ি বিক্রেতার চরিত্রে অভিনয় করছেন। তাকে ভালোবাসে গায়েন বাবু। যদিও তাকে সিনেমায় আমরা বংশীবাদক হিসেবেই পাবো। বাঁশি বাজিয়ে বাজিয়ে সে মানুষের কাছে বাঁশি বিক্রি করে। প্রাণ রায়ও আছেন আরেকটি কেন্দ্রীয় চরিত্রে।

সাখাওয়াৎ বলেন, আসলে ভাঙনের গল্পই এখানে মূখ্য। এটা কোনো ভালোবাসার গল্প নয়, জীবনের গল্প নিয়ে এই সিনেমা। যে জীবন ছিন্নমূল মানুষেরা যাপন করছেন। ভবঘুরে, ফেরিওয়ালা কিংবা স্টেশনে শুয়ে থাকা মানুষের গল্প হলো ‘ভাঙন’। এখানে অভিজাত কোনো চরিত্র নেই।

নির্মাতা জানান, প্রথম লট শেষ করে আপাতত বিরতিতে আছেন। শিগগির পরবর্তী লটের শুটিং শুরু করবেন। ‘ভাঙন’ এর শুটিং শেষ করেই অর্ধ সমাপ্ত ‘অর্জন ৭১’ নামের সিনেমাটির বাকি অংশের শুটিং করবেন।