চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Cable

ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা, দল থেকে বহিষ্কার

Nagod
Bkash July

এ রহমান মুকুল, পঞ্চগড়: পঞ্চগড়ে তরুণীকে ধর্ষণের পর মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে যুবলীগ নেতা মনোয়ার হোসেন মিন্টু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত মিন্টু দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।

Reneta June

পঞ্চগড় ও রাজধানীতে একাধিকবার ধর্ষণের শিকার হয়েছে উল্লেখ করে ওই তরুণী গত শনিবার রাতে মিন্টুর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন ও পর্ণগ্রাফি আইনে বোদা থানায় মামলা দায়ের করেন। এদিকে মামলার পর সাংগঠনিক শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে গতকাল রাতে মিন্টুকে দল থেকে বহিষ্কার করেছেন উপজেলা যুবলীগ।

মামলার এজাহার ও তরুণীর অভিযোগে জানা যায়, যুবলীগ নেতা মিন্টু ও ধর্ষণের শিকার তরুণী পাশাপাশি গ্রামের বাসিন্দা। দেড় বছর আগে মিন্টু তরুণীর সাথে ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর দু’জনে মধ্যে ঘনিষ্ঠ সর্ম্পক প্রেমের রূপ ধারণ করে। মিন্টু বিবাহিত ও দুই সন্তানের জনক হওয়ার পরেও নিজেকে অবিবাহিত বলে তরুণীর কাছে পরিচয় দেয়। এক পর্যায়ে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে মিন্টু তরুনীকে জোরপূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় গোপনে ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে মিন্টু। সেই সাথে তরুণী যদি ধর্ষণের কথা জানাজানি করলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্ষণের ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। ধর্ষিত তরুণী ভয়ে চুপচাপ থাকে। এরপর তরুণী রাজধানীর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা চালিয়ে আসছিল। এরই মাঝে গত ২৫ জুন মিন্টু ঢাকায় গিয়ে তরুণীর সাথে দেখা করে। বিবাহের জন্য তরুণীকে প্রস্তাব দেয়। পরে ওই দিনই রাতে তরুণীকে কাজী অফিসে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ঢাকার একটি অপরিচিত বাসায় আবারও ভয় দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের মুহূর্তের চিত্র আবারও মিন্টু মোবাইলে ধারণ করে। পরবর্তিতে ওই তরুণী মিন্টুকে বিয়ের জন্য চাপ দেয় কিন্তু মিন্টু বাড়িতে এসে কালক্ষেপণ শুরু করে। পরে ধর্ষণের কথা ওই তরুণী তার পরিবারকে জানায়। পারিবারিকভাবে মিন্টুকে বিয়ের প্রস্তাব দেওয়া হলে উল্টো ধারণকৃত ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এপর্যায়ে উপায় না পেয়ে বিচারের দাবিতে গত ১০ সেপ্টেম্বর সকাল থেকে বোদা থানায় ধরনা দেওয়ার পর রাতে তরুণীর অভিযোগে পর্ণগ্রাফি ও নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা নেয় বোদা থানা।

দেবীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক রাজু আহমেদ মিঠু জানান, সংগঠনের শৃংখলা বিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকায় চিলাহাটি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন মিন্টুকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এধরনের কর্মকাণ্ড এবং সংগঠনের ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করলে দেবীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীকে ছাড় দেওয়া হবে না।

বোদা থানার ওসি সুজয় কুমার রায় জানান, এই ঘটনায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ তদন্ত করছে। আসামী মনোয়ার হোসেন মিন্টুকে খোঁজা হচ্ছে।

BSH
Bellow Post-Green View