চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Channeliadds-30.01.24Nagod

মার্কিন নাগরিক শিখ নেতাকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী এক ভারতীয় গ্রেপ্তার

ভারতীয় বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক এক শিখ নেতাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে নিখিল গুপ্তা নামক একজন ভারতীয়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভারত সরকারের একজন কর্মকর্তা তাকে হত্যা পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য নিয়োগ করেছিলেন বলে জানা গেছে। যুক্তরাষ্ট্র প্রাথমিক অভিযোগপত্র প্রকাশ করার পরেই তাকে চেক প্রজাতন্ত্রে গ্রেপ্তার করা হয়। 

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেলের দপ্তর থেকে বিষয়টি নিয়ে প্রকাশিত অভিযোগপত্রে লেখা হয়েছে, ওই হত্যার পরিকল্পনাকারী একজন ভারতীয় নাগরিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের জন্য তিনি একজন ভাড়াটে খুনি নিয়োগের চেষ্টা করেছিলেন। গ্রেপ্তারকৃত ৫২ বছর বয়সী নিখিল গুপ্তা যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে এখনও চেক প্রজাতন্ত্রে আটক রয়েছেন।

অভিযোগ করা হয়, নিখিলকে পরিকল্পনা সম্পর্কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একজন সহযোগীর সঙ্গে যোগাযোগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এরপর নিউ ইয়র্ক শহরে ওই হত্যাকাণ্ড চালাতে পারে এমন একজন ভাড়াটে খুনির সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেন নিখিল গুপ্তা। কিন্তু সেই ভাড়াটে খুনির বদলে একজন ছদ্মবেশী আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তার সঙ্গে তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছিল, যিনি বলেছিলেন যে তিনি এক লাখ ডলারের বিনিময়ে ওই হত্যাকাণ্ড চালাতে পারবেন।

হত্যার জন্য অগ্রিম দেওয়ার এই ছবিটিও জুড়ে দেওয়া হয়েছে অভিযোগপত্রে

অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়েছে, গত ৯ জুন একজন সহযোগীর মাধ্যমে ছদ্মবেশী কর্মকর্তাকে ১৫ হাজার মার্কিন ডলার অগ্রিম দেন নিখিল। সেই লেনদেনের ছবিও অভিযোগপত্রে যুক্ত করা হয়েছে। মার্কিন বিচার দপ্তর প্রাথমিক অভিযোগ প্রকাশের পরই ৩০ জুন চেক প্রজাতন্ত্রের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নিখিল গুপ্তাকে গ্রেপ্তার করে।

Reneta April 2023

অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, তিনি আন্তর্জাতিক মাদক ও অস্ত্র পাচারের সঙ্গে জড়িত ছিলেন এবং মে মাসে ভারত সরকারের একজন কর্মকর্তা তাকে হত্যা পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য নিয়োগ করেছিলেন।

এই বিষয়ে ভারত সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে জানানো হয়েছিল বলে দাবি করে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলছেন, এই ঘটনা প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে এতটাই বিচলিত করেছিল যে সিআইএ-র ডিরেক্টর উইলিয়াম বার্নস আর ডিরেক্টর অফ ন্যাশানাল ইন্টেলিজেন্স অ্যাভ্রিল হেইনসকে তিনি সশরীরে ভারতে পাঠিয়েছিলেন। তারা বিষয়টি নিয়ে ভারতীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী জানিয়েছেন, এই ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কয়েক মাস আগে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো অভিযোগ তুলেছিলেন যে তার দেশেরও একজন শিখ নাগরিক এবং খালিস্তানি নেতাকে হত্যা করেছে ভারত সরকারের এজেন্টরা। এই ব্যাপারে কানাডার কাছে নির্ভরযোগ্য তথ্য আছে বলেও দাবী করেছিলেন ট্রুডো। ওই অভিযোগ তোলার পরে ভারতের সঙ্গে কানাডার এক অভূতপূর্ব কূটনৈতিক দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে।