চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

৯ গোলের রোমাঞ্চের ম্যাচে হাসি গার্দিওলার ম্যানসিটির

পিএসজি যখন হোঁচট খেয়েছে ক্লাব ব্রুগের বিপক্ষে। তখন একই গ্রুপ ‘এ’র আরেক ম্যাচে মিলেছে গোলবন্যার দেখা। ম্যানচেস্টার সিটি ও আরবি লেইপজিগের লড়াইয়ে হয়েছে ৯ গোল।

বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নতুন মৌসুমে গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে লেইপজিগের বিপক্ষে নেমেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। প্রথম লেগের লড়াইয়ে মাঠ ছেড়েছে ৬-৩ গোলের জয়ে পূর্ণ তিন পয়েন্ট জমিয়ে।

ঘরের মাঠে ম্যাচের ১৬ মিনিটে জ্যাক গ্রিলিশের বাড়ানো বলে নাথান একের গোলে লিড নেয় ম্যানসিটি। ২৮ মিনিটে অতিথিদের নরর্ডি মুকিয়েলে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দিলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়।

প্রথমার্ধের শেষদিকে, ম্যাচের ৪২ মিনিটে নরর্ডির বাড়ানো বলে ক্রিস্টোফার এনকুনকু এক গোল ফিরিয়ে দিলে ব্যবধান কমিয়ে বিরতির পথে হাঁটে লেইপজিগ।

বিজ্ঞাপন

ইতিহাদে বিরতির আগেই অবশ্য আরেকটি গোল পেয়ে যায় সিটিজেনরা। যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে পেনাল্টিতে গোল করেন রিয়াদ মাহরেজ।

মধ্যবিরতির পর ফিরে, ম্যাচের ৫১ মিনিটে লড়াই জমিয়ে তোলার আভাস দেয় লেইপজিগ। ড্যানিয়েল ওলমোর থেকে বল পেয়ে এনকুনকু যখন নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন, দলেরও দ্বিতীয় গোল ছিল সেটি।

পাঁচ মিনিট পরই ফের ব্যবধান বাড়ায় ম্যানসিটি। রুবেন ডিয়াজের ভাসানো বল জালে ঠেলে ৪-২ করেন গ্রিলিশ।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটে আবার নাটক জমার আভাস। ইউসুফ পৌলসেনের বানিয়ে দেয়া বলে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন এনকুনকু। লেইপজিগের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হ্যাটট্রিক, সিটির পয়েন্ট কাড়ার আভাস।

সেই প্রত্যাশা আর আলোর মুখ দেখেনি। ৭৯ মিনিটে অতিথিদের অ্যাঞ্জেলিনো দ্বিতীয় হলুদ কার্ডে মাঠ ছাড়েন। দশজনের দলের বিপক্ষে ৮৫ মিনিটে স্কোরলাইন ৫-০ করে দেন গ্যাব্রিয়েল জেসাস। পেপ গার্দিওলার মুখে হাসি ফোটে বড় জয়ে।

বিজ্ঞাপন