চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

২৬ ফেব্রুয়ারি ‘ডিরেক্টরস গিল্ড’ এর নির্বাচন

তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নাট্য নির্মাতাদের সংগঠন ‘ডিরেক্টরস গিল্ড’ এর নির্বাচন…

তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নাট্য নির্মাতাদের সংগঠন ‘ডিরেক্টরস গিল্ড’র নির্বাচন। ২০২১-২২ মেয়াদের জন্য আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের জন্য প্রাথমিক দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

গত ৯ জানুয়ারি রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে ডিরেক্টরস গিল্ডের বিদায়ী কমিটির দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে আসন্ন নির্বাচনী দিন ঘোষণা করে বর্তমান কমিটি।

বিজ্ঞাপন

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বর্তমান কমিটির সভাপতি সালাউদ্দিন লাভলু, সাধারণ সম্পাদক এসএ হক অলিকসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

ওইদিন বর্তমান কমিটির সদস্যরা জানান, ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে নতুন মেয়াদের নির্বাচন। তবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকলে নির্বাচনের তারিখ পিছিয়ে যেতে পারে!

এস এ হক অলিক চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, ২৬ ফেব্রুয়ারি ডিরেক্টরস গিল্ডের নির্বাচন হবে। নির্বাচন কমিশন ও আপিল বিভাগে থাকবেন মোট ছয় জন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার এস এম মহসিন। আরও দুজন নির্বাচন কমিশনার হলেন অনন্ত হিরা ও ঝুনা চৌধুরী।

অন্যদিকে আপিল বিভাগে রয়েছেন কিংবদন্তী তিনজন ব্যক্তিত্ব। তারা হলেন হাসান ইমাম, মামুনুর রশীদ ও আবুল হায়াত।

‘ডিরেক্টরস গিল্ড’র কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্মাতা সহিদ উন নবী বলেন, আসন্ন নির্বাচনে সম্পাদক পদ তিনটি পোস্ট বাড়ানো হয়েছে। পদগুলো হচ্ছে দপ্তর সম্পাদক, আইন ও বিচার সালিশ সম্পাদক এবং অনলাইন প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক। অন্যদিকে কার্যনির্বাহী পদ এগারোজন থেকে নয়জন করা হয়েছে। তবে সর্বমোট কমিটিতে আগের মতো একুশ জনই থাকবেন।

জানা গেছে, নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং আসন্ন নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা সর্বমোট পাঁচ’শ জনের মতো থাকবেন।

এদিকে দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভায় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের কাছে ডিরেক্টরস গিল্ডের নেতারা কয়েকটি দাবি জানান। বলা হয়, দেশের যে কোনো অঞ্চলে শুটিং করতে গেলে অনুমতি পেতে অনেক ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হয়। যাতে সহজেই শুটিং অনুমতি পাওয়া যায় সেজন্য তথ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন নির্মাতারা।

এছাড়া নির্মাতাদের স্বার্থে ওয়েলফেয়ার, বিদেশি চ্যানেলের আধিক্য কমিয়ে কীভাবে দেশীয় চ্যানেল আরও বেশি দর্শকদের কাছে নিয়ে যাওয়া যায় সেই হস্তক্ষেপও করা হয়।

ডিরেক্টরস গিল্ডের পক্ষ থেকে উত্থাপিত দাবিগুলো গ্রহণ করেন তথ্যমন্ত্রী। সেখানে তিনি করোনার মধ্যেও নির্মাতা ও ডিরেক্টরস গিল্ডের তৎপরতার প্রশংসা করেন এবং সাধারণ সভায় তোলা দাবিগুলো বিবেচনা নিয়ে পূরণের আশ্বাস দেন বলে জানা যায়।