চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হেফাজতের আরেকটি হুমকি

মনজুরুল আলম: সুপ্রিম কোর্টের সামনে ন্যায় বিচারের প্রতীক হিসেবে স্থাপিত ভাস্কর্যকে ‘গ্রিক দেবীর মূর্তি’ অ্যাখ্যায়িত করে তা সরানোর দাবি জানিয়ে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ-এর মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, ১৬ কোটি মুসলমানের দেশে সুপ্রিম কোর্টের সামনে মূর্তি রাখা চলবে না।

দ্রুত তা অপসারণ করা না হলে ‘আরেকটি শাপলা চত্বরের সূচনা হবে’ বলে হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, কোনো গ্রিক দেবী ন্যায়ের প্রতীক হতে পারে না। ন্যায়ের প্রতীক হচ্ছে পবিত্র আল কুরআন।

বিজ্ঞাপন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে নবীনগর দাওয়াতুল হক পরিষদ আয়োজিত সিরাতুন্নবী (সা:) সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

মাওলানা শরীফ উদ্দিন আফতাবীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তৃতা করেন, হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা শায়খ সাজিদুর রহমান ও অন্যরা।

রোমান যুগের ন‌্যায়বিচারের প্রতীক ‘লেডি জাস্টিস’র আদলের এই ভাস্কর্য সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের সামনে ‘লিলি ফোয়ারা’য় গত বছরের ডিসেম্বরে স্থাপন করা হয়। এটি নির্মাণ করছেন ভাস্কর মৃণাল হক। ভাস্কর্যটি একজন নারীর। ডান হাতে তলোয়ার বাম হাতে দাঁড়িপাল্লা নিয়ে তিনি দাঁড়িয়ে আছেন। তলোয়াড়টি নিচের দিকে নামানো আর দাঁড়িপাল্লা উপরে ধারণ করে আছেন।

বর্তমান বিশ্বে প্রচলিত আইন শাস্ত্রের গোড়াপত্তন হয় রোমান যুগে। বাংলাদেশেও আইন শাস্ত্রে রোমান আইন পড়ানো হয়ে থাকে। রোমানদের লেডি জাস্টিস গ্রিকদের কাছে পরিচিত ছিল দেবী থেমিস হিসেবে।

এই ভাস্কর্য স্থাপনের পর থেকেই বিভিন্ন ইসলামী সংগঠন সর্বোচ্চ আদালত থেকে তা অপসারণের দাবি জানিয়ে আসছে। এ লক্ষ্যে তারা স্মারকলিপি ও বিক্ষোভের মতো কর্মসূচি দিয়ে আসছে।

Bellow Post-Green View