চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হিন্দিকে ভারতের জাতীয় ভাষা করার প্রস্তাব দিলেন অমিত শাহ

বহু ভাষাভাষীর দেশ ভারতে হিন্দিকে জাতীয় ভাষা করার প্রস্তাব দিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

শনিবার ‘হিন্দি দিবস-২০১৯’ উপলক্ষে এক টুইটে অমিত শাহ এমন প্রস্তাব দিয়ে এই ভাষার মাধ্যমেই ভারতকে একসূত্রে বাঁধার আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

অমিত শাহ বলেন, বহু ভাষাভাষীর দেশ ভারতে প্রতিটি ভাষার নিজস্ব গুরুত্ব থাকলেও বিশ্বব্যাপী পরিচিতির জন্য একটি অভিন্ন ভাষার প্রয়োজন। দেশের সর্বাধিক কথিত ভাষা হলো হিন্দি। আর এই ভাষা দেশের মানুষের মধ্যে একতা তৈরির ক্ষমতা রাখে।

ভারতে প্রতি বছর ১৪ সেপ্টেম্বর হিন্দি ভাষা দিবস হিসাবে পালিত হয়। ভারতের গণপরিষদ হিন্দিকে ভারতের সরকারি ভাষা হিসেবে যখন গ্রহণ করেছিল সেই দিনের তাৎপর্য উল্লেখ করেই এই দিনটি পালন।

বিজ্ঞাপন

হিন্দিসহ দেশে ২২টি তফসিলি ভাষা স্বীকৃত থাকলেও দেশে এখনো কোনো জাতীয় ভাষা নেই। তবে হিন্দি কেন্দ্রীয় সরকারের দুটি সরকারি ভাষার মধ্যে একটি। অন্যটি ইংরেজি ভাষা। অমিত শাহ মূলত একটি একক ও জাতীয় ভাষার প্রয়োজনীয়তা থেকেই এমন প্রস্তাব দিয়েছেন।

কিন্তু গত জুনে নতুন শিক্ষানীতি-২০১৯ এর খসড়ার পর দেশজুড়ে তীব্র বিরোধিতার মুখোমুখি হতে হয়েছিলো মোদি সরকারকে। বিশেষ করে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলো থেকে চরম প্রতিবাদ আসে। মূলত দেশের সমস্ত স্কুলে হিন্দি বাধ্যতামূলক করার সুপারিশ করে কেন্দ্রীয় সরকার। আর তখনই ক্ষোভে ফেটে পড়ে দক্ষিণের রাজ্যগুলো।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করেন এবং বলেন, প্রত্যেক রাজ্যেরই আলাদা আলাদা চরিত্র এবং আলাদা আলাদা ভাষা রয়েছে। আঞ্চলিক ভাষাগুলোকেই অগ্রাধিকার দিতে হবে। আঞ্চলিক ভাষার প্রতি আমার সম্পূর্ণ সমর্থন আছে। মাতৃভাষাকে এবং তারপরে অন্যান্য ভাষাগুলোকেও গুরুত্ব দিতে হবে।

বিভিন্ন পক্ষের প্রবল চাপের মুখে প্রস্তাবিত নতুন শিক্ষানীতির খসড়ায় বড় ধরনের পরিবর্তন করতে বাধ্য হয় মোদি সরকার। তবে জাতীয় হিন্দি দিবসে আবারও একক ভাষার কথা বলে আগের ক্ষোভকে ফের উস্কে দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

Bellow Post-Green View