চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাসানের তোপে ৩৩০ রানে থামল বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম থেকে: পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৩৩০ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে ৬ উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। যোগ হয় ৭৭ রান।

৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৩ রানে প্রথমদিন শেষ করেছিল বাংলাদেশ। লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম অপরাজিত থেকে দিন শেষ করায় আশা ছিল বড় সংগ্রহের। হাসান আলীর পেস তোপে তিনশ পেরিয়ে থামল ইনিংস।

হাসান নিয়েছেন ৫ উইকেট। প্রথমদিন একটি উইকেট নেয়া পেসারের শনিবারে শিকার চার ব্যাটার।

শেষে মেহেদী হাসান মিরাজ ব্যাটিং ঝলক দেখাতে না পারলে আরও আগেই থেমে যেতে হতো বাংলাদেশকে। ৬৮ বলে ৩৮ রানে অপরাজিত থাকেন ধীরে ধীরে টেস্টে অলরাউন্ডার হয়ে ওঠা অফস্পিনার। টেলএন্ডার ব্যাটারদের সঙ্গ না পেয়ে ইনিংসটা আরও বড় করতে পারেননি।

স্বাগতিকরা শেষের দুই উইকেট হারায় পরপর দুই বলে। পরের ইনিংসে তাই হ্যাটট্রিকের অপেক্ষায় থাকবেন হাসান।

বিজ্ঞাপন

সকালে সেঞ্চুরির আশা জাগিয়ে ৯১ রানে থামে মুশফিকুর রহিমের ইনিংস। ফাহিম আশরাফের বলে উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে ক্যাচ দেন মি. ডিপেন্ডেবল। রিভিউ নিয়ে কাজ হয়নি। সেঞ্চুরির সুযোগ হারিয়ে ড্রেসিংরুমে ফিরতে হয়েছে হতাশা নিয়ে।

আগের দিন ৮২ রানে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক। চট্টগ্রামের টেস্টের দ্বিতীয় দিন উইকেটে কাটান সোয়া এক ঘণ্টা। যোগ করেন ৯ রান।

মুশফিকের আগেই সাজঘরে ফিরে যান লিটন দাস ও ইয়াসির আলি। দুজনই হাসানের বলে আউট হন। সেঞ্চুরির পর বেশিদূর যেতে পারেননি লিটন। দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই আউট হন আর কেবল ১ রান যোগ করে। ১১৪ রানে থামে ইনিংস। অভিষিক্ত ইয়াসির নেমে ৪ রান করে বোল্ড হন।

মিরাজকে ভালো সঙ্গ দিচ্ছিলেন তাইজুল ইসলাম। অষ্টম উইকেট জুটিতে তারা যোগ করেন ৩০ রান। তাইজুল ১১ রান করে ফেরার পর মিরাজ ছিলেন দ্রুত রান তোলার চেষ্টায়। মারেন ৬টি বাউন্ডারি।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে খেলেছে ১১৪.৪ ওভার। লাঞ্চ বিরতি চলছে। তারপর ব্যাটিং শুরু করবে পাকিস্তান।

বিজ্ঞাপন