চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হাতি মৃত্যুর তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট

গত ১৯ বছরে চট্টগ্রামের বনাঞ্চলে মারা যাওয়া বেশকিছু হাতির মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করে তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনোজ কুমার ভৌমিক সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় জনস্বার্থে এই রিট  করেছেন। রিটে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রধান বন সংরক্ষকসহ চট্টগ্রাম অঞ্চলের বন সংরক্ষককে বিবাদী করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

রিটের বিষয়ে আইনজীবী মনোজ কুমার ভৌমিক গণমাধ্যমকে বলেন, ‘চা বাগান রক্ষার জন্য দেয়া বেড়ার বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে, গুলিতে এবং নানা অসুখ-বিসুখে গত ১৯ বছরে ১০৬টি হাতি মারা গেছে বলে রোববার ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের এক প্রতিবেদনে এসেছে। যার মধ্যে ২২টি হাতি মারা গেছে বার্ধক্যজনিত জটিলতায়। তবে দুঃখজনক বিষয় হল, ২২টি হাতির বাইরে এতগুলো হাতির মৃত্যুর বিষয়ে কোনো তদন্ত হয় নাই। কেবল দুইটি হাতির মৃত্যু নিয়ে মামলা হয়েছে। তাই তদন্ত না হওয়া বাকি ৮৪টি হাতির মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করে তদন্তের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। এবং ৮৪টি হাতির মৃত্যুতে সংশ্লিষ্টদের অবহেলার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে এই রিট আবেদনে।’

বিজ্ঞাপন

‘এ্যালিফেন্ট পচিং, কিলিংস: সুইপট আনডার দ্য রাগ’ শিরোনামে রোববার ডেইলি স্টারে যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, সেখানে বন বিভাগের দেয়া তথ্য উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ‘চট্টগ্রাম ফরেস্ট সার্কেলে গত ১৯ বছরে ১০৬টি হাতি মারা গেছে। যার মধ্যে দুর্ঘটনায় ৩২টি, অসুস্থ হয়ে ২৯টি, ২২টি বার্ধক্যজনিত জটিলতায়, বিদ্যুতায়িত হয়ে ১৫টি এবং আটটি গুলিতে মারা গেছে।’