চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘হল কম পেলেও মানের দিকে এগিয়ে থাকবে জান্নাত’

চলচ্চিত্রের সাইমন সাদিকের ক্যারিয়ার প্রায় আট বছর। এবারই প্রথম এই নায়কের ‘জান্নাত’ ছবিটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উৎসব ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। নায়ক সাইমনের ছবির সঙ্গে ঈদে মুক্তি পাবে দেশের শীর্ষনায়ক শাকিব খানের ছবি। ঢালিউডের এই সুপারস্টারের ছবির প্রতি দর্শক এবং সিনেমা হল মালিকদের আগ্রহ বরাবরই বেশি।

তাই মুক্তির দৌড়ে শাকিব খানের ছবি বেশি হল পাবে সেটাই স্বাভাবিক। শুধু তাই নয়, অন্য নায়কদের ছবিও আসবে। থাকবে দেশের সবচেয়ে বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া’র ছবি। এর ভিড়ে সাইমনের ‘জান্নাত’ কত হলে মুক্তি পাবে? এ নিয়ে কী ভাবছেন সাইমন?

বিজ্ঞাপন

চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে আলাপে তিনি, ‘গত ১০ বছর ধরে ঈদে আমি ফিল করেছি, বাংলাদেশের সিনেমার সবচেয়ে বড় তারকা শাকিব খানের সিনেমা থাকে। যথারীতি এবার ঈদেও ওনার ছবি থাকছে। হল মালিকদের অনেক বেশি উৎসাহের কারণ সেটা, শাকিব খানের ছবি আছে। শাকিব খান ছাড়াও জাজ মাল্টিমিডিয়ার ছবিও থাকবে।’

‘সবমিলিয়ে আমরা হয়তো হলের দিক পিছিয়ে থাকবো। কিন্তু যে ক’টি হলে জান্নাত মুক্তি মুক্তি পাবে সেগুলোতে দর্শক গিয়ে ছবিটি উপভোগ করবেন। আমি বিশ্বাস করি জান্নাত দর্শকদের মন ছুঁয়ে যাবে। সবকিছুর ঊর্দ্ধে আমি বলবো, হল সংখ্যা কম পেলেও মানের দিকে এগিয়ে থাকবে জান্নাত।’

২০১২ সালে জাকির হাসান রাজুর ‘জ্বি হুজুর’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষিক্ত হন সাইমন সাদিক। পরের বছর ‘পোড়ামন’ ছবিতে অভিনয় করে তারকা বনে যান তিনি। ছবিটি সুপারহিট হয়। এরপর অনেগুলো ছবিতে কাজ করেছেন এই নায়ক। তবে ঈদে কখনও তার ছবি মুক্তি পায়নি। ‘জান্নাত’ দিয়ে ক্যারিয়ারে প্রথম ঈদ পাচ্ছেন ‘ব্ল্যাক মানি’ ছবির এই নায়ক।

সাইমন বলেন, ‘এই ছবির ঈদে আমার ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। ২০১৮ সাল আমার জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আমি মনে করি, জান্নাত আমার জন্য জন্য একটি লাকি প্রজেক্ট। ফাইনালি জান্নাত ঈদে আসছে।’

এতো বছর ঈদে কেন ছবি আসেনি জানতে চাইলে সাইমন বলেন, ‘প্রযোজক-পরিচালক হয়তো চাননি। আবার এমনও হয়েছে, আমিও চাইনি আমার সব ছবি যেন ঈদে না আসে। কারণ প্রতিযোগিতা করার মতো ছবি ছিল না সেগুলো।’

তিনি বলেন, ‘ছবি মুক্তি আগে শিল্পীরা বলেন ভালো ছবি, অন্য রকম ছবি। আমি বলবো জান্নাত সমসাময়িক গল্পের ছবি, ট্রাজেডির ছবি, শিক্ষণীয় ছবি। কোনো বাবা মা-ই চান না সন্তান বিপথে যাক। জান্নাতে সেটাই দেখানো হয়েছে। জান্নাতে দেখানো হয়েছে একটা ছেলের জঙ্গির হয়ে ওঠার নেপথ্য। জঙ্গিবাদ নিয়ে সারাবিশ্বে যে অস্থিরতা বিরাজ করছে, তার বিপরীতের ছবি জান্নাত। ছবিতে অতিরঞ্জিত কিছু নেই। যতটুকু দর্শক চায়, তাই রয়েছে জান্নাতে।’

‘জান্নাত’ পরিচালনা করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। ছবিতে সাইমনের নায়িকা মাহিয়া মাহি। ‘পোড়ামন’-এর পর এই ছবিতে আবার তারা পর্দায় ফিরছেন। আরও আছেন মিশা সওদাগর, আলী রাজ, শিমুল খান প্রমুখ। যৌথভাবে ছবির চিত্রনাট্য করেছেন আসাদ জামান এবং সুদীপ্ত সাঈদ।

Bellow Post-Green View