চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

হত্যার শিকার হলেন ৪ ব্লগার

আবার একজন ব্লগারকে হত্যাকাণ্ডের শিকার হতে হলো। মঙ্গলবার সিলেটে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হন অনন্ত বিজয় দাশ নামে এক ব্লগার। সকালে অফিস যাওয়ার পথে বাসার কাছেই তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

চাকরির পাশাপাশি অনন্ত বিজয় সিলেটে ‘যুক্তি’ নামের একটি ছোট কাগজের সম্পাদক ছিলেন। এছাড়াও ‘মুক্তমনা’, ‘পড়ুয়া’ ও ‘বাঁধভাঙ্গার আওয়াজ’সহ বিভিন্ন ব্লগে লেখালেখি করতেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ বলছে, চারজন মাঝারি গড়নের মুখোশধারী যুবক এ হামলা চালায়। হামলার সময় তাদের কাঁধে ব্যাগ ছিল। আনন্তকে পেছন থেকে চাপাতি দিয়ে আঘাত করা হলে তার মাথা থেকে মগজ বের হয়ে যায়।

ঠিক একই কায়দায় হত্যা করা হয় আরো ৩ ব্লগারকে। এরা হলেন আহমেদ রাজিব হায়দার, অভিজিৎ রায় ও ওয়াসিকুর রহমান বাবু।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি অমর একুশে বইমেলা থেকে বের হলে কয়েক যুবক অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করে। এই হামলায় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাও আহত হন।

বিজ্ঞাপন

অভিজিৎ ‘মুক্তমনা’ নামে একটি বাংলা ব্লগ পরিচালনা করতেন। তার লেখালেখির বিষয় ছিলো বিজ্ঞান।

অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের পর ৩০ মার্চ রাজধানীর বেগুনবাড়িতে ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান বাবুকেও একই কায়দায় কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সেসময় দু’জনকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর মিরপুরের পল্লবীতে নিজের বাসার সামনে কুপিয়ে হত্যা করা হয় আরেক ব্লগার আহমেদ হায়দার রাজিবকে।

অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের স্থানের কাছেই ২০০৪ সালে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও প্রথাবিরোধী লেখক হুমায়ুন আজাদকে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জার্মানিতে মারা যান তিনি।

গত ৩ মে এক ভিডিও বার্তায় অভিজিৎকে হত্যার দায় স্বীকার করে জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদার ভারতীয় শাখা ‘আল-কায়েদা ইন ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট (একিউআইএস)’।

পরের দিন ব্লগার রাজিব হায়দার ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এ কে এম শফিউল ইসলাম লিলনকে হত্যার দায়ও স্বীকার করে সংগঠনটি।

Bellow Post-Green View