চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

স্মিথ-ফিঞ্চের সেঞ্চুরির ভারটা নিতে পারলেন না কোহলিরা

অ্যারন ফিঞ্চ ১১৪ ও স্টিভেন স্মিথের ১০৫, সঙ্গে ডেভিড ওয়ার্নারের ৬৯ আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ১৯ বলে ৪৫, পৌনে চারশর কাছে সংগ্রহ পায় অস্ট্রেলিয়া। তাড়া করতে নেমে ভারত অবশ্য তিনশ পেরিয়ে গেছে, তবে জয়ের মতো অবস্থায় ছিল না কখনোই!

সিডনিতে তিন ওয়ানডের সিরিজে প্রথম ম্যাচে ভারতকে ৬৬ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে শুরু করেছে অস্ট্রেলিয়া।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভারে ৬ উইকেটে ৩৭৪ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ওভারে ৮ উইকেটে ৩০৮ পর্যন্ত যেতে পেরেছে সফরকারী ভারত।

অস্ট্রেলিয়া এদিন একটি রেকর্ড করেছে। ভারতের বিপক্ষে নিজেদের সর্বোচ্চ সংগ্রহ এনেছে। যার ভিত গড়ে দেন ওয়ার্নার-ফিঞ্চ উদ্বোধনীতে। জুটিতে দুজনের ১১তম শতরানের প্রযোজনা আসে।

শুরুতে সাবধানী ফিঞ্চ আর আক্রমণাত্মক ওয়ার্নার ওপেনিংয়ে ১৫৬ যোগ করেন ২৭.৫ ওভারে। ওয়ার্নার ৭৬ বলে ৬৯ রানে ফিরলে ভাঙে যাত্রা।

ফিঞ্চের সাথে যোগ দেন স্মিথ। দুজনে জুটিতে আনেন আরও ১০৮ রান। এবার ফিঞ্চের বিদায়ে ভাঙে যাত্রা। অজি অধিনায়ক ৯ চার ২ ছয়ে ১২৪ বলে ১১৪ রানের ইনিংস দিয়েছেন। তার ১৬তম সেঞ্চুরি। পথে ছুঁয়েছেন ৫ হাজার রানের মাইলফলক।

বিজ্ঞাপন

স্মিথ তখন আগুনে মেজাজে। স্টয়নিস রানের খাতা খোলার আগেই ফিরলে যোগ দেন ম্যাক্সওয়েল। দুজনে দ্রুতগতিতে যোগ করেন ৫৬ রান।

স্মিথ ফেরেন ৬৬ বলে ১০৫ রান তুলে। ক্যারিয়ারে নবম, অজিদের তৃতীয় দ্রুততম ওয়ানডে সেঞ্চুরি সেটি। তার ইনিংস সাজানো ১১ চার ৪ ছক্কায়। ম্যাক্সওয়েল ছিলেন আরও ঝোড়ো মেজাজে, ৫ চার ৩ ছয়ে ১৯ বলে ৪৫ তুলে ক্যাচ দিয়েছেন।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে দুটো ফিফটি দিয়েছে ভারত। রান পেয়েছে প্রায় সবাইই। কিন্তু কাজের কাজটা করতে পারেনি কেউ।

আগারওয়াল ২২, অধিনায়ক কোহলি ২১, রাহুল ১২, জাদেজা ২৫, সাইনি অপরাজিত ২৯ রান দিয়েছেন।

দুই ফিফটির প্রথমটি ধাওয়ানের, ১০ চারে ৮৬ বলে ৭৪ রান। পরের ফিফটি হার্দিক পান্ডিয়ার। যার ব্যাটে কিছুটা আশার আলো খুঁজে পেয়েছিল ভারত। কিন্তু ৭ চার ৪ ছক্কায় পেস-অলরাউন্ডারের ৭৬ বলের ৯০ রানের ইনিংস থামতেই আশা ফিকে হয়ে যায়!

জয়ের পথে জাম্পা ৪টি ও হ্যাজেলউড ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন। অন্য উইকেটটি স্টার্কের।