চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

স্টোকসময় জয়ে পথে ফিরল ইংল্যান্ড

সিরিজে ১-১এ সমতা

প্রথম ইনিংসে ব্যাটে ভরসার ভিত গড়া ১৭৬, দ্বিতীয় ইনিংসে ওপেনার হয়ে যেয়ে ম্যাচের চাহিদা মেটানো অপরাজিত ৭৮ রান। প্রথম ইনিংসে বলে ১ উইকেট, দ্বিতীয় ইনিংসে ২টি। ম্যানচেস্টার টেস্টকে বেন স্টোকসময় বলাই যায়। যাতে ভর করে ১১৩ রানের জয় তুলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে ইংল্যান্ড।

তিন টেস্টের সিরিজের প্রথমটি সাউদাম্পটনে ৪ উইকেটে জিতে এগিয়ে ছিল সফরকারী উইন্ডিজ। ম্যানচেস্টারে ভালোমতোই ঘুরে দাঁড়াল স্বাগতিকরা। সিরিজের ফয়সালা হবে ম্যানচেস্টারেই, ২৪ জুলাই মাঠে গড়াবে দুদলের পরের টেস্টটি।

বিজ্ঞাপন

প্রথম ইনিংসে রানপাহাড় গড়ে মঞ্চটা বেশ সাজায় স্বাগতিকরা। ৯ উইকেটে ৪৬৯ রান তুলে ব্যাটিং ছাড়েন জো রুট। বৃষ্টি তৃতীয় দিন ধুয়ে নিয়ে ঝামেলা পাকায়! পরে চতুর্থ দিনে প্রথম ইনিংসে দারুণ ধৈর্যে আড়াইশ ছোঁয়ার পর ভেঙে পড়ে ক্যারিবীয় ব্যাটিং।

বিজ্ঞাপন

ফলোঅন এড়িয়ে অলআউট হওয়ার আগে ক্যারিবীয়রা প্রথম ইনিংসে করে ২৮৭ রান। ইংল্যান্ড তাতে প্রথম ইনিংস থেকেই ১৮২ রানের বড় লিড তোলে। জয়ের খোঁজে থাকা স্বাগতিকরা দ্রুত কিছু রান তুলে পঞ্চম দিনে যত বেশি সময় সম্ভব ব্যাটিং দিতে চেষ্টা করে উইন্ডিজকে।

বিজ্ঞাপন

দ্রুত রান তোলার জন্য জস বাটলার ও বেন স্টোকসকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় শুরুতে। বাটলার না পারলেও ওপেনার বনে যেয়ে স্টোকস আস্থার প্রতিদান দেন। ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৫৭ বলে অপরাজিত ৭৮ রানের ইনিংস দেন সময়ের দাবি মিটিয়ে।

তাতে ইংল্যান্ড ৩ উইকেটে ১২৯ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংস ছাড়তে পারে দ্রুতই। উইন্ডিজের সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩১২, ওভার মেলে ৮৫টি।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ৭০.১ ওভার পর্যন্ত গেছে উইন্ডিজ। অলআউটের আগে তুলেছে ১৯৮ রান। ব্রুকস ৬২, ব্লেকউড ৫৫ ও শেষদিকে অধিনায়ক হোল্ডারের ৩৫ ছাড়া বলার মতো অবদান নেই আর কারও।

জয় তুলতে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নিয়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। ২টি করে উইকেট নিয়ে তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন ওকস, বেস ও স্টোকস। একটি উইকেট গেছে কারেনের ঝুলিতে।