চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সৈকত নাসিরের ‘বর্ডার’-এ নতুন নায়ক ফারুক সুমন

নায়ক অনন্ত জলিলের ‘দিন দ্য ডে’র পর নবাগত ফারুক সুমন কাজ করতে যাচ্ছেন সৈকত নাসির পরিচালিত ‘দ্য বর্ডার’ চলচ্চিত্রে। পরিচালক জানান, চলচ্চিত্রটির নায়ক চরিত্রে থাকছেন সুমন ফারুক। গল্প ও অভিনয় নির্ভর চলচ্চিত্র এটি। যেখানে তার উপস্থিতি সমৃদ্ধ করবে।

মূলত ‘মাসুদ রানা’ চলচ্চিত্রে দর্শকদের জন্য সারপ্রাইজ হিসেবে ছিলেন সুমন ফারুক। সৈকত নাসির পরিচালিত ওই চলচ্চিত্রটি করোনায় আটকে যায়। তার আগেই ‘বর্ডার’-এ কাজ করতে যাচ্ছেন সুমন ফারুক।

বিজ্ঞাপন

পরিচালক সৈকত বলেন, ‘বর্ডার’-এ তার মতোই একজনকে খুঁজছিলাম। ‘মাসুদ রানা’ দেরি হওয়ায় নতুন এ চলচ্চিত্রে তাকে প্রস্তাব করি। উনি সবকিছু জেনে বুঝে রাজি হন।

বিজ্ঞাপন

তবে হুট করেই সুমন ফারুক এর নায়ক বনে যাওয়া নয়! অনন্ত জলিলের মাধ্যমে প্রথম সিনেমায় আসেন তিনি।

সুমন ফারুক বলেন, অনন্ত জলিল ভাই আমার খুব কাছের মানুষ। তার হাত ধরে চলচ্চিত্রে আসা। অনন্ত ভাইয়ের ‘দিন দ্য ডে’তে তার পাশাপাশি নায়ক চরিত্রে অভিনয় করেছি। কয়েক দেশ মিলে চলচ্চিত্রটির আশি ভাগ কাজ শেষ। করোনার জন্য তুর্কির অংশে শুটিং বাকি আছে।

এরপর ‘মাসুদ রানা’ সিনেমার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে যথেষ্ট প্রশিক্ষণ নিতে হয়েছে, একমাস ধরে থাইল্যান্ডের ফুকেটের টাইগার মুয়াইথাই থেকে মিক্সড মার্শালআর্ট, কিক বক্সিংসহ ফাইটিংয়ের বেশকিছু ট্রেনিং নিয়েছেন।

তার ভাষায়, যেখান থেকে অক্ষয় কুমার, টাইগার শ্রফসহ হলিউডের ভিন ডিজেলের মতো বড় বড় স্টাররা ট্রেনিং নিয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে এর আগে কেউ গিয়েছেন কিনা তা জানা নেই।

‘দ্য বর্ডার’ চলচ্চিত্রে যুক্ত হওয়া প্রসঙ্গে সুমন ফারুক বলেন, ‘মাসুদ রানা’ সিনেমায় কাজের জন্য সৈকত ভাইয়ের সঙ্গে জাজ মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে পরিচয়। তিনি শিক্ষিত, স্মার্ট এবং সময়ের জনপ্রিয় নির্মাতাদের একজন। চলচ্চিত্র নিয়ে তার চিন্তা ও মেকিং স্টাইল আমাকে মুগ্ধ করেছে। তাছাড়া ‘দ্য বর্ডার’ খুব ভালো গল্পের চলচ্চিত্র। সবকিছু পছন্দ হওয়াতে কাজ করতে যাচ্ছি। সেপ্টেম্বরে শেষে শুটিং শুরু হবে।

তিনি বলেন, চলচ্চিত্রের বর্তমান অবস্থা বিবেচনায় দায়িত্ববোধ নিয়ে কাজ করতে হবে। অনেকেরই লোকসান গুনতে গুনতে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এখন টার্গেট নিয়ে সঠিক পলিসি অবলম্বন করে আগাতে হবে। বর্তমানে ভালো নির্মাতারা কাজ করছেন। তাদের নির্দেশনায় চলচ্চিত্র ফ্লপ হয় না। ফ্লপ হয় পলিসির কারণে। পরিচালক, প্রযোজক, শিল্পী প্রত্যেকেই যেন ভাবেন, আমার কারণে লস না হোক। তাহলে চলচ্চিত্র চলবে।

তিনি আরও বলেন, ছোট বেলা থেকেই সিনেমা ভালো লাগতো। কাজ করবো বলেই নিজেকে প্রস্তুত করেছি। গুণী অভিনেতাদের কাছ থেকে অভিনয় শিখছি। এছাড়া বিভিন্নভাবে জেনেবুঝে অভিনয়ের কোর্স করে নিয়েছি। নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেতে চাই। দ্য বর্ডার, মাসুদ রানা’র পরে বিশ্বের অন্যান্য দেশের বড় ইন্ডাস্ট্রির চলচ্চিত্রে কাজ করবো। কথাবার্তা অনেকদূর এগিয়েছে। এটাই আমার টার্গেট।