চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সুপার-ক্ল্যাসিকো নয়, ফাইনালে মাদ্রিদ ডার্বি

অ্যাটলেটিকোর কাছে হেরে গেছে বার্সা

পাঁচ গোলের দ্বিতীয়ার্ধে ভিএআরে বার্সেলোনার দুটি গোল বাতিল হল। রোমাঞ্চের শেষে মেসিদের হারিয়ে দিল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। তাতে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে এল ক্ল্যাসিকো আর হচ্ছে না, প্রথম সেমিতে রিয়াল জেতায় হবে মাদ্রিদ ডার্বি।

সৌদি আরবের কিং আব্দুল্লাহ স্পোর্টস সিটি স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার রাতে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বার্সাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শিরোপার মঞ্চে গেছে অ্যাটলেটিকো। যেখানে তাদের জন্য অপেক্ষায় রিয়াল।

বুধবার রাতে প্রথম সেমিফাইনালে ভ্যালেন্সিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপার দাবিদার হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। ১২ জানুয়ারি হবে প্রথমবার দেশের বাইরে বসা নতুন আঙ্গিকে চার দলের প্রথম স্প্যানিশ সুপার কাপের ট্রফি ফয়সালা।

ম্যাচের শুরুতে প্রতিপক্ষের উপর চেপে বসা বার্সেলোনা আটকে যাচ্ছিল অ্যাটলেটিকো রক্ষণ আর গোলরক্ষক দেয়ালে। গোলশূন্য প্রথমার্ধে দাপট ধরে খেলে কাতালানরাই। অ্যাটলেটিকোও এক-দুবার আটকে যায় বার্সা গোলরক্ষকের দেয়ালে।

মধ্যবিরতির পর ফিরে খেলায় ধার বাড়ায় অ্যাটলেটিকো। দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম মিনিটেই পায় সাফল্য। মিডফিল্ডার কোকে এনে দেন লিড।

বিজ্ঞাপন

জবাব দিতে পাঁচ মিনিট সময় নেয় বার্সা। ত্রাতা হয়ে আসেন লিওনেল মেসি। অধিনায়কের ঝলকে ফেরে সমতা।

সাত মিনিট পর লিড এনেছিলেন মেসি। কিন্তু এবার দেয়াল হয়ে দাঁড়ায় ভিএআর। ৫৯ মিনিটে বল জালে জড়ানোর আগে আর্জেন্টাইন তারকার হাতে ছোবল দিয়েছিল, ভিএআরের সাহায্যে হ্যান্ডবলের বাঁশি বাজিয়ে গোলটি বাতিল করে দেন রেফারি।

ম্যাচের ৬২ মিনিটে অ্যান্টনিও গ্রিজম্যান সেই দুঃখ ভুলিয়ে লিড আনেন। আলবার ক্রসে সুয়ারেজের হেড গোলরক্ষক ওব্লাকের গ্লাভসে বাধা পেয়ে ফিরলে পাল্টা শটে জাল খুঁজে নেন ফরাসি তারকা।

খানিকবাদে ওব্লাক দেয়ালে সুয়ারেজ আটকে যাওয়ার পর বারো মিনিটের ব্যবধানে আরও একটি গোল আদায় করেছিল বার্সা। এবার হতাশ হন জেরার্ড পিকে। ভিএআরে দেখা যায় জালে বল জড়ানোর আগে অফসাইড ছিলেন পিকে, আবারও গোল বাতিল।

একচেটিয়া খেলতে থাকা বার্সার উপর এরপরই চেপে বসে অ্যাটলেটিকো। হারানোর কিছু নেই, পাওয়ার আছে অনেক মন্ত্রে লাগাতার আক্রমণ শানাতে থাকে। যার সাফল্য ঘরে তোলে ছয় মিনিটের ব্যবধানে দুটি গোল করে।

প্রথমে ৮১ মিনিটে আলভারো মোরাতার স্পটকিকে সমতা ফেরায় মাদ্রিদের দলটি। বার্সা গোলরক্ষক নেতো ফাউল করে বসেছিলেন প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে। সমতায় উজ্জীবিত অ্যাটলেটিকো ৮৬ মিনিটে জয়সূচক গোলটিও আদায় করে নেয়। মেসির জাতীয় দল সতীর্থ অ্যাঞ্জেল কোরেয়া দারুণ গোলে নিশ্চিত করেন ফাইনালে এল ক্ল্যাসিকো নয় হবে মাদ্রিদ ডার্বি।

বিজ্ঞাপন