চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সাংবাদিক হত্যায় রাম রহিম সিং দোষী সাব্যস্ত

ধর্ষণের দায়ে কারাবন্দী ভারতের কথিত ধর্মীয় গুরু গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের বিরুদ্ধে ২০০২ সালে এক সাংবাদিককে হত্যার অভিযোগ আদালতে প্রমাণিত হয়েছে।

১৭ জানুয়ারি তার সাজার রায় দেয়া হবে।

দুই নারী ভক্তকে ধর্ষণের দায়ে ২০১৭ সালে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয় সিরসায় অবস্থিত ডেরা সাচ্চা সৌদা আশ্রমের এই নেতাকে।

রাম রহিমের আশ্রমের ওই সদর দপ্তরে ধর্মের অপব্যবহার করে যৌন নিপীড়ন ও অসামাজিক কর্মকাণ্ড চলার কথা ফাঁস করার পর ২০০২ সালে স্থানীয় একটি পত্রিকার সম্পাদক রামচন্দ্র ছত্রপতি দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন। তাকে হত্যার মামলাই চলছিল এই ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে।

রাম রহিম সিং-সাংবাদিক-রামচন্দ্র ছত্রপতি
নিহত সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি

Advertisement

রাম রহিম ছাড়াও কূলদ্বীপ সিং, নির্মল সিং এবং কৃষ্ণন লাল নামের আরও তিন ব্যক্তি ছত্রপতি হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছে।

শুক্রবার হরিয়ানার পঞ্চকুলার একটি আদালতে শুনানির সময় কারাগার থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে রাম রহিমকে হাজির করা হয়। সেখানেই হত্যায় দোষী সাব্যস্ত হয় রাম রহিম সিং।

ওই সময় হরিয়ানা, পাঞ্জাব ও এর আশপাশের এলাকায়, বিশেষ করে যেসব জায়গায় ডেরার অনুসারীদের বসবাস, সেসব জায়গায় বাড়তি সতর্কতা হিসেবে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। কেননা ২০১৭ সালে ধর্ষণ মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ার পর রাম রহিমের ভক্তদের সংঘর্ষ সহিংসতার ঘটনায় ৩৮ জন নিহত হয়েছিল।

ওই ঘটনার পর আরও অর্ধশত নারী তাদের সঙ্গে ডেরায় হওয়া যৌন নিপীড়নে কথা প্রকাশ করেছিলেন।

বর্তমানে রাম রহিম সিংয়ের বিরুদ্ধে ডেরা সাচ্চা সৌদা’র সাবেক ম্যানেজার রণজিৎ সিং হত্যা মামলা চলমান রয়েছে।