চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সরাসরি দেখা যাবে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট

দেশের ক্রিকেটে প্রযুক্তির ছোঁয়া

ঘরোয়া ক্রিকেট লিগের ম্যাচ চলছে বগুড়ায়, মিরপুরের বিসিবি কার্যালয়ে বসে তা সরাসরি দেখছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। মাঠে না গিয়ে মোবাইল অ্যাপে চোখ রেখেই করে ফেলছেন পারফরম্যান্স মূল্যায়ন। তাতে জাতীয় দলের জন্য সঠিক খেলোয়াড়কে বাছাই করাটা হয়ে যাচ্ছে সহজ। কল্পিত এ দৃশ্যটি শিগগিরই বাস্তবে রূপ নেবে প্রযুক্তির ছোঁয়ায়।

ইংল্যান্ডের প্রতিষ্ঠান পিচভিশন স্পোর্টস টেকনোলজির কাছ থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এনেছে এমনকিছু ডিভাইস, যা বদলে দিতে পারে দেশের ক্রিকেটের প্রচার চিত্র। পরীক্ষামূলক ভাবে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে বসানো হয়েছে নতুন এ প্রযুক্তি। যাতে করে তিনটি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও সরাসরি চলে যাচ্ছে বিসিবির নির্দিষ্ট অ্যাপে।

বিজ্ঞাপন

তবে এই সম্প্রচার সাধারণ মানুষের জন্য নয়। শুরুতে কেবলমাত্র বিসিবি অফিসিয়ালরাই পাবেন অ্যাপটি ব্যবহারের সুবিধা। ক্রিকেট বোর্ড বাণিজ্যিকভাবে চিন্তা করলে সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীরাও দেখতে পারবেন ঘরোয়া লিগের খেলা।

বিসিবির ম্যানেজমেন্ট ইনফর্মেশন সিস্টেম (এমআইএস) ম্যানেজার নাসির আহমেদ নাসু শনিবার মিরপুরে নিজ কার্যালয়ে বসে দেখালেন কীভাবে অ্যাপটি কাজ করে। মোবাইলে ঢুকে অ্যাপে ক্লিক করতেই চলে এল ফতুল্লায় চট্টগ্রাম-বরিশাল বিভাগের মধ্যেকার ম্যাচের লাইভ স্ট্রিমিং। নিচে বড় করে লেখা সংক্ষিপ্ত স্কোর। টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারের মতোই অনেকটা।

বিজ্ঞাপন

এই প্রযুক্তিতে উইকেটের উপরই স্থির থাকছে ক্যামেরা। যেখানে বোলারের বোলিং, ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং, উইকেটের আচরণ স্পষ্টই বুঝতে পারবেন নির্বাচকরা। তাতে খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সের সত্যিকার মান কেমন ছিল, মাঠে উপস্থিত না থেকেও তা বুঝতে পারবেন দেশের ক্রিকেটের নীতি-নির্ধারকরা। অনেক সমস্যার সমাধান হতে পারে এ লাইভ স্ট্রিমিং প্রযুক্তির কল্যাণে।

অ্যাপটি চালু হলে নির্বাচক, বিসিবি কর্তারা ঘরে বসেই দেখতে পারবেন ম্যাচ। কোনো অসঙ্গতি দেখলে দ্রুততম সময়ে নিতে পারবেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও। আম্পায়ার ভুল সিদ্ধান্ত দিলে ধরা যাবে সেটিও।

লাইভ স্ট্রিমিং শেষ হলে ম্যাচের ভিডিও চলে যাবে আর্কাইভে। সেখান থেকে তৈরি করা যাবে ম্যাচ হাইলাইটস। নির্দিষ্ট কোনো খেলোয়াড়ের পারফরম্যান্স দেখতে চাইলে সেই ভিডিও ক্লিপও তৈরি করা যাবে। অ্যাপ থেকে জাতীয় দলের কোচরাও প্রয়োজনে দেখে নিতে পারবেন কোনো খেলোয়াড়ের পারফরম্যান্স।

পর্যায়ক্রমে ঢাকার বাইরে তিনটি ভেন্যুতে লাইভ স্ট্রিমিং শুরু করতে চায় বিসিবি। বোর্ডের ম্যানেজমেন্ট ইনফর্মেশন সিস্টেম (এমআইএস) ম্যানেজার নাসির আহমেদ নাসু বলেছেন, ‘আমরা এটা মাত্রই শুরু করলাম দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে। ফতুল্লায় চলছে। এখানে লজিস্টিকসের বড় বিষয় আছে। বড় আকারে করতে সময় লাগবে। ফতুল্লার পর বগুড়ায় করার ইচ্ছা আছে।’

বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট সরাসরি সম্প্রচার করছে না কোনো টেলিভিশন চ্যানেল। বাণিজ্যিকভাবে কম লাভের আশঙ্কা থাকায় টিভি স্ক্রিনে আসছে না ঘরোয়া ক্রিকেটের ম্যাচ। বিসিবি যদি পিচভিশন লাইভ স্ট্রিমিং প্রযুক্তি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়, তাহলে শুরু হতে পারে ঘরোয়া ক্রিকেট দেখার নতুন সংস্কৃতি।

Bellow Post-Green View