চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘সময় যত গড়িয়েছে, আমরা জাত চিনিয়েছি’

সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শুরুতে পিছিয়ে পড়েও বরাবরের মতো ঘুরে দাঁড়িয়ে ঠিকই ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে ক্রোয়েশিয়া। দ্বিতীয়ার্ধে দলের সমতা ফেরানো গোল করা ইভান পেরিসিচ ম্যাচ শেষে প্রত্যাবর্তন নিয়ে বলেছেন, খেলার সময় যত গড়িয়েছে আমরাও নিজেদের জাত চিনিয়েছি।

ম্যাচের তিন মিনিটের সময় ক্রোয়েশিয়ার বক্সের একটু বাইরে ফ্রি-কিক পায় ইংল্যান্ড। ডেলে আলী বল নিয়ে ঢুকতে গেলে তাকে ফাউল করেন মদ্রিচ। শট নিতে আসেন কাইরেন ট্রিপিয়ার। ডান পায়ের বাঁকানো ফ্রি-কিকে দৃষ্টিনন্দন গোলে জাল খুঁজে নেন।

বিজ্ঞাপন

শুরুতেই পিছিয়ে পড়লেও হাল ছাড়েনি ক্রোয়েটরা। ৬৮তম মিনিটে ক্রোয়েশিয়াকে সমতায় ফেরান পেরিসিচ। নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে শেষ হয়। অতিরিক্ত সময়ের খেলার প্রথম ১৫ মিনিটেও গোল আসেনি। ১০৯তম মিনিটে মারিও মানজুকিচ গোলে নিজেদের ইতিহাসের প্রথমবার ফাইনাল নিশ্চিত করে ক্রোয়েশিয়া।

বিজ্ঞাপন

‘এর আগেও আমরা দুটো ম্যাচে পিছিয়ে থেকেও জয় তুলে নিয়েছিলাম। আমরা ফুটবলে অদম্য মনোভাব বজায় রেখেছিলাম। আমরা ধীরে ধীরে খেলা শুরু করেছিলাম। পিছিয়ে পড়লেও হাল ছেড়ে দেইনি। ম্যাচের সময় যত বেড়েছে আমরা ফুটবল শৈলী দেখিয়েছি।’

শেষবার ১৯৯৮-এ সেমিতে ফ্রান্সের বিপক্ষে খেলেছিল ক্রোয়েশিয়া। এবার সেই দলের বিপক্ষেই ফাইনাল। পেরেসিচ নিজেদের ইতিহাসের প্রথম ফাইনালকে ইতিহাসের আরও উচ্চতায় নিয়ে যেতে চান।

‘ক্রোয়েশিয়ার মতো ছোট্ট দেশের সেমিফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জনই অনেক। তবে আমরা নিজেদের ইতিহাসের শিখরে নিয়ে যেতে চাই। ’৯৮-এ আমি ছোট্ট ছিলাম, জাতীয় দলের জার্সি গায়ে বাসায় বসে খেলা দেখেছি। আর সবসময় চেয়েছি কবে জার্সি গায়ে দলের হয়ে মাঠে নামতে পারব। দলের জন্য কিছু করতে পেরে নিজেকে গর্বিত ভাবছি।’

চলতি বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর ম্যাচে ডেনমার্কের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও জয় তুলে নেয় ক্রোয়েশিয়া। কোয়ার্টার ফাইনালেও রাশিয়ার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফেরে তারা। পরে অতিরিক্ত সময়ে এগিয়ে গেলেও গোল শোধ করেছিল রাশিয়া। কিন্তু টাইব্রেকারে স্বাগতিকদের ৪-৩ গোলে হারিয়ে সেমিতে উঠে আসে জ্লাতকো দালিচের শিষ্যরা। সেমিতে তো প্রত্যাবর্তনের আরেকটি ইতিহাসই লিখল।

Bellow Post-Green View