চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ষড়যন্ত্র’ রুখতে আ. লীগের লিয়াজোঁ উপ-কমিটি

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র রুখতে একটি  লিয়াজোঁ উপ-কমিটি গঠন করেছে আওয়ামী লীগ।

এ উপ-কমিটি’র সদস্যরা সমাজের বিভিন্ন স্তরের গণ্যমান্য ব্যক্তি। যাদের অধিকাংশই অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা, আইনজীবী, চিকিৎসকসহ নানা পেশার মানুষ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির নির্বাচনী লিয়াজোঁ ও নির্বাচন সংক্রান্ত মনিটরিং উপ-কমিটি’র বৈঠকও অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে অংশ নেওয়া সদস্যদের মধ্যে কয়েকজন বলেন, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র যাতে নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাধা না হতে পারে সেজন্য সকলকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ বৈঠকের শুরুতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন : আমাদের সকলকে শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করে কাজ করতে হবে। নির্বাচনের সময়টাতে নির্বাচনী এলাকাগুলোতে যেনো কোনোভাবেই কোনো রাজনৈতিক দল বিশৃংখলা সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় সহায়তা করতে হবে।

‘‘এখন আমাদেরই দায়িত্ব শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী আসনে বসাতে স্ব স্ব দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেওয়া। আর কিছু সময় আমাদের হাতে আছে দায়িত্বে গাফিলতি করা যাবে না।’’

বাংলাদেশের মানুষ শেখ হাসিনাকে ভালোবাসে তার নেতৃত্বে বিশ্বাস করে জানিয়ে এ আওয়ামী লীগ নেতা বলেন: আমরা শেষ চার বছর ধরে পর্যবেক্ষণ করেছি, গ্রামে গ্রামে আওয়ামী লীগের ভোট শুধু বেড়েছে। ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদসহ সকল নির্বাচনে মানুষ আমাদের সমর্থন দিয়েছে।

Advertisement

এ সময় কমিটির অন্যতম সদস্য বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজের সাবেক উপাচার্য ডাক্তার কামরুল হাছান খান বলেন: আওয়ামী লীগের অনেকগুলো সাব-কমিটি, উপ-কমিটি রয়েছে; কিন্তু সবচেয়ে বড় কাজটা হচ্ছে লিয়াজোঁ কমিটির। আমরা ২০০৮ সালেও এখানে কাজ করেছি। সব নির্বাচনী-ই কঠিন। তবে এই নির্বাচনটায় আমাদের অস্তিত্বের একটা বিষয় রয়েছে।

এসময় তিনি যোগ করেন: আমাদের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা যেভাবে দেশটাকে বিশ্বের কাছে এগিয়ে নিয়ে গেছেন সেটাকে অব্যাহত রাখতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যেটা আমাদের কামনা সেটাকে বাস্তবায়ন আমরা ধরে রাখতে চাই। এজন্য মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি জননেত্রী শেখ হাসিনার জয়যুক্ত হওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

লিয়াজোঁ কমিটির দায়িত্ব তুলল ধরে কামরুল বলেন: প্রতিটা আসনেই আমাদের লিয়াজোঁ কমিটি চোখ রাখবে। কোনো ষড়যন্ত্র হচ্ছে কিনা, আমাদের লোকদের মধ্যে কোনো বিভেদ হচ্ছে কিনা প্রতিটা বিষয়ই আমাদের মনিটর করতে হবে। পাশাপাশি আমাদের নিজেদেরই বিভিন্ন ধরনের সংগঠন আছে সে সংগঠনগুলোকে আমাদের প্রচারের কাজে লাগবো। সব অপশন আমরা মবিলাইজ করবো। আমাদের সময় খুবই কম। তাই আমাদের ঝুঁকি নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র আছে এবং সেটা মোকাবেলায় কৌশল তুলে ধরে তিনি বলেন: আমরা দেখতে পাচ্ছি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে। নতুন নতুন রাজনৈতিক জোট হয়েছে, তারা আমাদের বিপদে ফেলতে নানা ধরনের চেষ্টা চলছে। করছে নানাভাবে আমাদের বিপদে ফেলার চেষ্টা করছে। আমাদের উপর অর্পিত দায়িত্বগুলো আন্তরিকভাবে পালন করতে হবে। আমরা যেন আমাদের কাজে কোন রকম কাফিল অতি না করি।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য ও লিয়াজোঁ কমিটির আহ্বায়ক মোঃ রশিদুল আলম।

তিনি বলেন: নৌকা মার্কাকে আবারো বিজয়ী করার জন্য আমাদের নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করার জন্য যা যা করা দরকার তার সাথে আমাদের সম্পৃক্ত থাকতে হবে। আজ আমাদের এখানে যারা উপস্থিত আছেন তারা তাদের চাকরি জীবনে অত্যন্ত সততার সাথে কাজ করেছেন, নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন।

‘‘তারা তাদের অবসর সময়ে আজ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আবারও বাস্তবায়ন করার জন্য উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে ধরে রাখার জন্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করার জন্য দৃশ্যমান উন্নয়ন যেন ব্যাহত না হয়। ক্ষুধা দারিদ্রের বাংলাদেশ আবার যেন ফিরে আসে না আসে। সেই ধারাবাহিকতা রক্ষার্থে আমরা কাজ করতে চাই।’’

এসময় তিনি বলেন: উন্নয়নের অপর নাম শেখ হাসিনা, গণতন্ত্রের অপর নাম শেখ হাসিনা, বাংলাদেশের অপর নাম শেখ হাসিনা। এদেশের মানুষের স্বাধীনতার অপর নাম শেখ হাসিনা।