চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোনালদো-ফন ডাইককে হারিয়ে ফিফা বর্ষসেরা মেসি

রোনালদো-ফন ডাইককে হারিয়ে ফিফা বর্ষসেরা ‘দ্য বেস্ট মেনস প্লেয়ার’ নির্বাচিত হয়েছেন লিওনেল মেসি। ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশি ষষ্ঠবারের মতো ফিফার খেতাব জিতলেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন মহাতারকা।

গত মৌসুমের জন্য ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের লড়াই ছিল বার্সেলোনার লিওনেল মেসি, জুভেন্টাসের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও লিভারপুলের ভার্জিল ফন ডাইকের মধ্যে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ী অলরেড ডিফেন্ডার ফন ডাইক কয়েক সপ্তাহ আগে উয়েফা বর্ষসেরার পুরস্কার হাতে তুলেছেন মেসি-রোনালদোকে হারিয়েই।

বিজ্ঞাপন

সোমবার রাতে ইতালির মিলানের অপেরা হাউস লা স্কালায় হয়ে গেল ফিফা ‘দ্য বেস্ট’র জমকালো আয়োজন। সেখানেই রোনালদো-ডাইককে টপকে মেসির হাতে উঠেছে সেরার পুরস্কার।

ছয়বার বর্ষসেরা হওয়া মেসি সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন টানা একযুগ। পাঁচবার ফিফার খেতাব জিতে তার সঙ্গী ছিলেন রোনালদো। সেখানে গত মৌসুমে লিভারপুলকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ টাইটেল জেতাতে বড় ভূমিকা রাখা ডাচ ডিফেন্ডার ফন ডাইক প্রথমবার ছোট্ট তালিকায় জায়গা পেয়েছিলেন।

বিজ্ঞাপন

আর্জেন্টিনার জার্সিতে হতাশ করলেও বরাবরের মতো গত ক্লাব মৌসুম দারুণ কেটেছিল মেসির। বার্সেলোনাকে লা লিগা জিতিয়েছেন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল ও কোপা ডেল রের ফাইনালে তুলেছেন। ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে আছে লিগে সর্বোচ্চ ৩৬ গোল করে পিচিচি ট্রফি ও ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু জয়ের স্মৃতি। উয়েফা সেরার গত আসরে সর্বোচ্চ ১২ গোলও তারই। সেসবের স্বীকৃতি এই দ্য বেস্ট।

রোনালদো সেখানে জুভেন্টাসে পা দিয়ে প্রথম মৌসুমটা দারুণ কাটিয়েছিলেন। তুরিনের বুড়িদের টানা অষ্টম সিরি আ শিরোপা জেতাতে ভূমিকা রেখেছেন। লিগে ২১ গোল তার, সব ক্লাব প্রতিযোগিতা মিলে সেখানে ২৮ গোল নামের পাশে। পর্তুগাল জার্সিতে উয়েফা নেশন্স লিগ জিতেছেন। যার সেমিফাইনালে দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করেছেন। তাকে যদিও ফিরতে হচ্ছে শূন্য হাতেই!

আর গত পুরো মৌসুমজুড়ে নিজেদের রক্ষণকে দুর্গ বানিয়ে রাখার পুরস্কার উয়েফা সেরাতেই আটকে থাকল ফন ডাইকের। গত মৌসুমের জন্য ডিফেন্ডার হিসেবে প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন। পরে উয়েফা বর্ষসেরা। সবমিলিয়ে অসাধারণ একটা মৌসুম কাটিয়েছেন। দেড় বছর আগে লিভারপুলে যোগ দিয়ে হয়েছেন ভরসা।

ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে গত মৌসুমে ৬৪ ম্যাচে ফন ডাইককে ড্রিবলে বোকা বানিয়ে কেউ গোল করতে পারেনি। লিভারপুলকে জিতিয়েছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, প্রিমিয়ার লিগ হাতছাড়া হয়েছে একটুর জন্য। চেলসিকে হারিয়ে উয়েফা সুপার কাপও জিতিয়েছেন ক্লাবকে। নেদারল্যান্ডসকে নেশন্স লিগের ফাইনালে তুলেছিলেন যোগ্য অধিনায়কের মতো খেলেই। তবে প্রথমবারের মতো সেরা তিনে থেকেও দ্য বেস্ট ছুঁয়ে দেখা হল না ডাচম্যানের।

Bellow Post-Green View