চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রোকেয়া হলে আবারও ভোট শুরু হবে বিকেল ৩টায়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম রোকেয়া হলে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আবার বিকেল ৩টায় শুরু হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সামাদ সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, সকাল ৮টা থেকে শুরু করে যে সময় পর্যন্ত ভোটগ্রহণের ক্ষেত্রে নষ্ট হয়েছে, ৩টা থেকে শুরু হয়ে ঠিক সেই পরিমাণ সময় ভোটগ্রহণ চলবে। এ সময় বহিরাগতসহ যেসব ছাত্র-শিক্ষকের সঙ্গে আইডি কার্ড নেই, যে সাংবাদিকদের সঙ্গে বিশেষ কার্ড নেই তাদেরকে বাইরে থাকতে অনুরোধ জানান তিনি।

৩টা থেকে শিক্ষার্থীদের সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে নিজ নিজ ভোট দিতে আহ্বান জানিয়ে প্রো-উপাচার্য বলেন, ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার পর যত সময়ই লাগুক সেসব শিক্ষার্থীরা ভোট দিতে পারবে।

যেসব ব্যালট পেপার নষ্ট হয়েছে সেগুলোর ব্যবস্থা কীভাবে করা হবে, সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ব্যালট পেপার কোনো সমস্যা না। আমাদের এগুলো ছাপানোর সিস্টেম আছে। আমরা ভোট গণনার জন্য যেসব এজেন্সিকে ভাড়া করেছি বা যাদের সহায়তা নিয়েছি, চাইলে তারা ওই পরিমাণ ব্যালট পেপার ঘণ্টাখানেকের মধ্যে প্রস্তুত করে দিতে পারবে।’

তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে রাখার অভিযোগ নিয়ে সৃষ্ট বিশৃঙ্খলাকে কেন্দ্র করে বেলা ১২টার দিকে বেগম রোকেয়া হলে ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয়া হয়। এই বিশৃঙ্খলার মাঝে কোটা আন্দোলনকারী প্যানেলের সহ-সভাপতি (ভিপি) প্রার্থী নুরুল হক নূর মারধরের শিকার হন। তার অভিযোগ, ছাত্রলীগ প্যানেলের লোকজন তাকে আঘাত করেছে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার সকাল ৮টায় প্রায় সব হলে ডাকসু নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হলেও রোকেয়া হলে প্রায় এক ঘণ্টা দেরিতে শুরু হয়েছিল ভোট। এর কিছুক্ষণ পরই একাধিক প্রার্থী অভিযোগ করতে থাকেন যে, তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

বাম জোট থেকে বেগম রোকেয়া হলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জিএস মুনিরা দিলশাদ ইরা সাংবাদিকদের বলেন, ‘সকালে যখন ভোট শুরু হয়, তখন আমরা ব্যালট বাক্স দেখতে চাইলেও দেখানো হয়নি। পরে আমরা বিক্ষোভ শুরু করলে ৯টার দিকে ব্যালট বাক্স দেখানো হয়। রোকেয়া হলে ব্যালট বাক্স থাকার কথা ৯টি। তবে আমাদেরকে দেখানো হয়েছে ছয়টি।’ডাকসু নির্বাচন-রোকেয়া হলের ভোটগ্রহণ

এ ঘটনার পর ব্যালট নিয়ে সৃষ্ট বিশৃঙ্খলায় ডাকসু নির্বাচন বর্জন করে স্বতন্ত্র জোট অরণি-শাফী প্যানেল।

আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে স্বতন্ত্র জোটের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী শাফী আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন: সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে, ছাত্রলীগ এবং প্রশাসনের সীমাহীন দুর্নীতির কারণে এবং অরণি সেমন্তি খান ও শ্রবণা শফিক দীপ্তিকে শারীরিকভাবে আক্রমণ করায় স্বতন্ত্র জোট ডাকসু নির্বাচন বর্জন করছে।

এরপর ভোট বাতিল করে পুনঃতফসিল দাবি করে স্বতন্ত্র, বাম প্রগতিশীল ছাত্রঐক্য, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদসহ ৪টি প্যানেল।

প্রগতিশীল ছাত্রজোট, কোটা সংস্কার আন্দোলনের ব্যানারে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বতন্ত্র জোট ডাকসু নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে। একই সাথে নির্বাচন আবার অনুষ্ঠানের দাবির জানিয়েছে তারা।

Bellow Post-Green View