চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রিয়ালে চাকরি হারালে কোথায় যাবেন জিদান?

রিয়াল মাদ্রিদে চাকরি নিয়ে ভীষণ চাপে আছেন জিনেদিন জিদান। তার অধীনে শেষ তিন ম্যাচে জয়হীন লস ব্লাঙ্কোসরা। করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে আছেন ফরাসি কোচ। তার অনুপস্থিতিতে ডাগআউটে দাঁড়িয়ে আলাভেসের মাঠ থেকে ৪-১ গোলের বড় জয় নিয়ে ফিরেছেন সহকারী কোচ ডেভিড বেত্তোনি।

আলাভেস ম্যাচে আবার গোল করেছেন জিদানের কোচিংয়ে খরায় থাকা এডেন হ্যাজার্ড। নিজের সহকারীর এমন নজরকাড়া পারফরম্যান্স না আবার কাল হয়ে দাঁড়ায় জিদানের জন্য!

বিজ্ঞাপন

দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই বলে অবশ্য জিদানের পাশে দাঁড়িয়েছেন তার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক দিদিয়ের দেশম। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে নিজ মাটিতে শিরোপা জেতানো অধিনায়ক দেশম নিজেই এখন বিশ্বকাপজয়ী কোচ। ফ্রান্সকে দ্বিতীয় বিশ্বসেরা শিরোপা এনে দেয়া কোচের ইচ্ছা সাবেক সতীর্থ তার জায়গাটা নিক, পূরণ করুক সাফল্যের এক অনন্য চক্র।

বিজ্ঞাপন

একজন খেলোয়াড় ও কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জেতার অনন্য নজির আছে কেবল তিনজনের। ব্রাজিলের মারিও জাগালো, জার্মান কিংবদন্তি ফ্রেঞ্জ বেকেনবাওয়ার এবং দিদিয়ের দেশমের।

অন্যদিকে খেলোয়াড় ও কোচ হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছেন সাতজন, যাদের মাঝে আছেন জিদানও। সেটিও একবার নয়, টানা তিনবার। খেলোয়াড়-কোচ হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও বিশ্বকাপ জেতা এমন কাউকে পায়নি ফুটবল বিশ্ব, যার অনন্য রেকর্ডের হাতছানি জিদানের দিকে। দেশম চাইছেন সেটাই করে দেখান তার একসময়কার সতীর্থ।

এক সাক্ষাৎকারে দেশমকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল তার উত্তরসূরি হিসেবে জিদানের সম্ভাবনা আছে কিনা? জবাবে ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন ফ্রান্সকে ২০১৮ বিশ্বকাপ জেতানো কোচ, ‘অবশ্যই। আমি জানি এ নিয়ে পরে আরও কথা হবে এবং এর পেছনে কারণও আছে। তাতে একটা চক্র পূরণ হবে।’

‘খেলা নিয়ে তার খুঁতখুঁতে মনোভাব আছে, আর আমার এ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। সবকিছু শেষে সে যা করেছে দিন শেষে, জিজু হল জিজু।’