চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংসকারীদের কুকুরের মতো গুলি করেছে সরকার: বিজেপি নেতা

ভারতের পশ্চিম বঙ্গের বিজেপি প্রেসিডেন্ট দিলীপ ঘোষ বলেছেন, যারা রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করে তাদের গুলি করে মারা উচিত। ঠিক যেমনটা আগে বিজেপি শাসিত রাজ্যে মারা হতো।

পশ্চিম বাংলার নদীয়া রাজ্যে এক উন্মুক্ত সভায় দিলীপ ঘোষ, গত বছরের ডিসেম্বরে নাগরিকত্ব বাতিল আইনের প্রতিবাদের সময়ে রেল ও গণপরিবহণ ধ্বংসকারীদের গুলি ও লাঠিচার্জের অনুমতি না দেয়ায় মমতা ব্যানার্জির সমালোচনাও করেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, তারা কী মনে করে? এসব গণপরিবহন কার? তাদের বাবার? এসব গণপরিবহন যারা ট্যাক্স দেয় তাদের। এখানে আসবে, আমাদের খাবে, এখানে থাকবে আবার জনগণের সম্পদ নষ্ট করবে। এটা কি তাদের জমিদারী? লাঠিপেটা করা হবে, গুলি করে দেবো আর জেলে পুরে রাখবো।

বিজ্ঞাপন

এই নেতা আরো বলেন, দিদির পুলিশ ওই সব ধ্বংসকারীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি কেননা তারা তার ভোটার। উত্তর প্রদেশ, কর্ণাটক ও আসামে আমাদের সরকার তাদের কুকুরের মতো গুলি করেছে। সেটা ঠিকই করেছে।

দিলীপ ঘোষ তাদেরকে হিন্দু বাঙালিদের স্বার্থ নষ্টকারী হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, পুরো দেশে ২ কোটি মুসলিম অনুপ্রবেশকারী আছেন। তার মধ্যে ১ কোটি পশ্চিম বাংলাতেই। আর মমতা ব্যানার্জি তাদের রক্ষা করার চেষ্টা করছেন।

তবে কংগ্রেস নেতা দীনেশ গুণ্ডু রাও বিজেপি নেতার এই ধরনের ভাষা ব্যবহারের সমালোচনা করেছেন। টুইটে তিনি বলেন, যদি এমনটাই হওয়ার কথা হয় তাহলে জেএনইউতে বিজেপি বা এবিভিপি সন্ত্রাসীদের কেন পুলিশ গুলি করলো না কুকুরের মতো। এটা অন্যকে আক্রমণ করার মতো ভাষা। সরকারি ক্ষমতা দিয়ে মানুষকে ক্রীতদাস করার ভাষা।

গত বছরের ডিসেম্বর থেকে ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রতিবাদ চলছে। যেটার কারণে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে গিয়ে অমুসলিমরা গিয়ে সহজেই ভারতীয় নাগরিক হতে পারবে। সমালোচকদের মতে এটা মুসলিমদের বিরুদ্ধে আইনের বৈষম্য এবং সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষতা মূলনীতির পরিপন্থী।